কলারোয়ার দেয়াড়ায় কপোতাক্ষ নদের ভেঁড়িবাধ ভেঙ্গে নতুন করে আরো দুই গ্রাম প্লাবিত : কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্ধি


416 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ার দেয়াড়ায় কপোতাক্ষ নদের ভেঁড়িবাধ ভেঙ্গে নতুন করে আরো দুই গ্রাম প্লাবিত : কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্ধি
জুলাই ২২, ২০১৫ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,দেয়াড়া থেকে ফিরে :
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় কপোতাক্ষ নদের তীরের ভেঁড়িবাধ ভেঙ্গে কপোতাক্ষের তীরবর্তী দেয়াড়া সানাপাড়াসহ আরো দুটি গ্রাম পাকুড়িয়া ও দেয়াড়া কাশিয়াডাঙ্গা নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওই এলাকায় বসবাসরত কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্ধি হয়ে অসহায়ভাবে মানবেতর জীবন যাপন করছে। ওই তিন গ্রামের এমন কোন বাড়ি নেই যেখানে পানি প্রবেশ করেনি। অনেক বাড়ির গৃহিনীরা ঘরের মধ্যে মাচা তেরী করে রান্না করছে। পায়খানা প্রসাবের ব্যাপক অসুবিধা দেখা দিয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে তাদের জন্য উচু স্থানে স্যানিটেশনের ব্যবস্থা করা দরকার। দুষিত পানির অভাবে অনেক শিশু পেটের পিড়ায় ভুগছে। অনেকেই ঘরবাড়ি ছেড়ে উচু রাস্তার উপর আশ্রয় নিয়েছে। গবাদী পশু,হাস-মুরগী ও মানুষ একই জায়গায় বসবাস করছে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, গত দুই দিন পেরিয়ে গেলেও ওই ভেঁিড়বাধ মেরামতে কেউ এগিয়ে আসেনি। স্বেচ্ছাশ্রমে ওই এলাকার অধিবাসিরা বাধ মেরামতে রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছে কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোন পানি বন্ধ করতে পারেনি তারা। বাঁধ ধ্বসে এ ভাবে যদি পানি প্রবেশ করতে থাকে তাহলে হয়তো যারা রাস্তার উপর আশ্রয় নিয়েছে তাদেরও অন্যত্রে সরে যেতে হবে। এ দিকে ওই তিন গ্রামের মাঠের পর মাঠ পাট,শাকসবজি,গাছগাছালি,কয়েকশ বিঘা মাছের ঘের সহ ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
দেয়াড়া সানা পাড়ার কামরুল সানা,খালেক সানা,আতিয়ার বিশ্বাস,মিজান সানাসহ আরো অনেকে ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান,কপোতাক্ষের ভেঁিড়বাধ ভেঙ্গে তাদের মাছের ঘের, পাট,সবজি,ধানের চারা ক্ষেত সবই নষ্ট হয়ে গেছে। কপোতাক্ষের নাব্যতা হারানোর কারণে প্রতিবছর ভেড়িবাধ ভেঙ্গে এভাবে পানি প্রবেশ করে প্রায় ৬ মাস এ সব এলাকায় জলাবদ্ধতা থাকে বলে তারা জানান। ফলে তাদের প্রতিবছর ৬ মাস মানবেতর জীবন-যাপন করতে হয়।
স্থানীয় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান জানান, তার পরিষদের পক্ষ থেকে সাধ্যমত সাহায্য করে যাচ্ছেন। এমনকি ওই এলাকার চিত্র উপজেলা প্রশাসনকে জানিয়েছেন। তবে গতকাল পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসনসহ উদ্ধর্তন কর্মকর্তারা ওই এলাকায় যায়নি।
এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে বুধবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে জানান, কপোতাক্ষ নদের তালা উপজেলার কিছু এলাকায় বাঁধে ভাঙ্গন দেখা দেয়ার বিষয়টি আমি জানার পর সেখানে বাঁধ সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তবে কলারোয়া উপজেলার দেয়াড়াসহ তিনটি গ্রামে কপোতাক্ষ নদের পানি প্রবেশের ঘটনা আমাকে কেউ জানায়নি। তিনি বলেন, কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ছুটিতে থাকায় হয়তো খবরটি তিনি পাননি। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানও তাকে জানায়নি। তবে জরুরী ভিত্তিতে তিনি ধ্বসে যাওয়া বেড়িবাঁধ সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহন করবেন বলে জানিয়েছেন।