কলারোয়ার ৪৩টি পূজামন্ডপ দূর্গোৎসবে দেবীকে বরণ করতে প্রস্তুত


135 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ার ৪৩টি পূজামন্ডপ দূর্গোৎসবে দেবীকে বরণ করতে প্রস্তুত
অক্টোবর ৩, ২০১৯ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান ::

সাতক্ষীরার কলারোয়ার ৪৩টি পূজামন্ডপ দূর্গোৎসবে দেবীকে বরণ করতে প্রস্তুত । শিল্পীর রং-তুলির শেষ আঁচড়ে দেবীর আগমনী বার্তা দরজায় কড়া নাড়ছে। ইতোমধ্যে উপজেলার সকল মন্দিরে প্রতিমার মাটির কাজ, রং তুলির আঁচড়ের কাজ ও ডেকোরেশনেসহ আলোক সজ্জার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন শুধু অপেক্ষার পালা। বৃহম্পতিবার ৩ অক্টোবর মহাপঞ্চমী ও ৪ অক্টোবর শুক্রবার মহাষষ্ঠীর মধ্যদিয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু হয়েছে দূর্গোৎসব।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষ্যে দম ফেলার যেন সময় নেই তাদের। ইতোমধ্যে মন্ডপে মন্ডপে ভক্তদের উৎসবমুখর উপস্থিতি জানান দিচ্ছে তাদের উচ্ছাসিততা। শারদীয় দূর্গোৎসব সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন করতে স্বেচ্ছোসেবকদের পাশাপাশি আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা নিরাপত্তা জোরদারে সচেষ্ট থাকতে দেখা গেছে।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মনোরঞ্জন সাহা বলেন,এবার কলারোয়া উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১২টি ইউনিয়নে মোট ৪৩টি পূজামন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর মধ্যে পৌরসভায় ৮টি, জয়নগর ইউনিয়নে ৮টি, জালালবাদে ২টি, কয়লায় ২টি, লাঙ্গলঝাড়ায় ২টি, কেঁড়াগাছিতে ২টি, সোনাবাড়ীয়ায় ২টি, চন্দনপুরে ৩টি, কেরালকাতায় ২টি, হেলাতলায় ৩টি, কুশোডাঙ্গায় ৩টি, দেয়াড়ায় ৫টি ও যুগীখালী ইউনিয়নে ১টি।

উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সন্দীপ রায় বলেন, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অবিরাম কাজ করে সংশ্লিষ্টরা সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে । প্রস্ততুত প্রতিমা, ডেকোরেশনের কাজও শেষ পর্যায়ে। আনি আরো বলেন,এবার দেবী মায়ের আগমন ঘোটকে অর্থাৎ এবার দেবী দুর্গা আসছেন ঘোড়ায় চড়ে। যাবেনও ঘোড়ায় ।

প্রতিমা শিল্পী রবীন পাল বলেন, তাদের কাজে সহযোগিতা করতে পরিবারের অন্যরাও অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে। মাটির কাজ শেষে রং-তুলির আঁচরে প্রতিমাগুলো জীবন্ত চিত্রে ফুটিয়ে তুলতে আপ্রান চেষ্টা করেছেন তারা।

কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মুনীর-উল-গীয়াস জানান, ‘প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলায় শান্তিপূর্ণ ও সার্বজনীনভাবে দূর্গোৎসব উদযাপনে সকল প্রস্তুত সম্পন্ন। দফায় দফায় পূজামন্ডপ কমিটি ও সংশ্লিষ্টদের সাথে মিটিং করা হয়েছে। বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থাও জোরদার করা হয়েছে।
এদিকে আগামি ৮ অক্টোবর দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে এবারের দূর্গোৎসব।