কলারোয়ায় ইউপি নির্বাচনে ১০টি ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হলেন যারা


323 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় ইউপি নির্বাচনে ১০টি ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হলেন যারা
মার্চ ২৩, ২০১৬ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১২টি ইউনিয়নের মধ্যে ১০টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান,সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ও সাধারণ সদস্যদের ফলাফল বেসরকারীভাবে  প্রকাশ করা হয়েছে। বাকী কেরালকাতা ইউনিয়নে ১টি ওয়ার্ড ও কুশোডাঙ্গা ইউনিয়নে দুটি ওয়ার্ডে ভোট গ্রহন স্থগিত করায় ওই দুই ইউনিয়নের ফলাফল প্রকাশ করা হয়নি। বিকাল ৪ টায় ভোট গ্রহন শেষ হওয়ার পর স্ব-স্ব কেন্দ্রে ভোট গননা শুরু হয়। ভোট গননা শেষে ১০টি ইউনিয়নের স্ব-স্ব প্রিজাইডিং অফিসার তাদের ফলাফল স্ব-স্ব রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট জমা দেন। রাত ১১ টার দিকে উপজেলা নির্বাচন অফিস ও স্ব-স্ব রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিস সুত্রে জানা যায়, জমাকৃত ফলাফলে যেসব চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন এবং তাদের নিকটতম প্রতিদ্বদ্বি প্রার্থীরা পরাজিত হয়েছেন তারা হলেন যথাক্রমে উপজেলার ১নং জয়নগর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের শামছুদ্দীন আল মাসুদ বাবু ৩০০৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং নিকটতম আ’লীগের প্রতিদ্বন্দ্বি বিশাখা সাহা তপন অটোরিকসা প্রতীকের ২৪৩৮ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ২নং জালালাবাদ ইউনিয়নে চশমা প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী (জামায়াত) শওকত হোসেন ৪২৫৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বদ্বি আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের আব্দুল খালেক ২৮২১-ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ৩নং কয়লা ইউনিয়নের আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের ছাত্র লীগের সভাপতি শেখ ইমরান হোসেন ২০৭৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বদ্বি প্রার্থী ওয়ার্কাস পার্টির হাতুড়ী প্রতীকের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুর রউফ ২০৪৮ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ৪নং লাঙ্গলঝাড়া ইউনিয়নের আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম ২৭৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বদ্বি নৌকা প্রতীকের প্রভাষক এম এ কালাম ২৬৬৮ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ৫নং কেঁড়াগাছি ইউনিয়নে আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের আবজাল হোসেন হাবিল ৬২৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বদ্বি প্রার্থী মোটরসাইকেল প্রতীকের মারুফ হোসেন ৩৫৫৪ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ৬নং সোনবাড়িয়া ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের মনিরুল ইসলাম এর আগে বিনা প্রতিদ্বদ্বিতায় নির্বাচিত হন। ৭নং চন্দনপুর ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের মনিরুল ইসলাম ৩৮৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার প্রতিদ্বদ্বি টেবিল ফ্যান প্রতীকের রমজান আলী (জামায়াত) ৩৩৭৪ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ৯নং হেলাতলা ইউনিয়নের বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের মোয়াজ্জেম হোসেন ৫১৬০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বদ্বি চশমা প্রতীকের আবু তালেব সরদার (জামায়াত) ৪৩২১ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ১১নং দেয়াড়া ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের মাহবুবুর রহমান মফে ৫৮৭৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বদ্বি প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকের  ইব্রাহিম হোসেন ৪২৩১ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। ১২নং যুগিখালী ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের রবিউল হাসান ৬৫২৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন এবং তার প্রতিদ্বদ্বি প্রার্থী আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের ওজিয়ার রহমান ৯৮৩ ভোট পেয়ে পরাজিত হন। একইভাবে প্রত্যেক ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ও সাধারণ সদস্যদের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।