কলারোয়ায় এক ইউপি মেম্বর কুলচাষীকে বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদের হুমকি দিচ্ছে। প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন


353 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় এক ইউপি মেম্বর কুলচাষীকে বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদের  হুমকি দিচ্ছে। প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন
সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৫ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
সাতক্ষীরায় ঘরবাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া ইউপি মেম্বর আমজাদ হোসেন এক কুল চাষীকে বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদ করে গ্রাম ছাড়া করার হুমকি দিচ্ছে। মেম্বরের ভয়ে ওই কুলচাষী বাড়ি ছাড়া হয়ে এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।  রোববার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন কলারোয়া উপজেলার সীমান্তবর্তী মাদরা গ্রামের মোঃ মুনছুর আলী সরদারের ছেলে কুল চাষী আলাউদ্দিন।
সংবাদ সম্মেলনে আলাউদ্দিন বলেন, তার মা সুফিয়া বেগম, খালা রোকেয়া বেগম, আইনুর ও জাইনুর ক্রয় ও ওয়ারেশ সূত্রে মাদরা বাজারের পাশে ৮০ শতক জমির মালিক। তার মামা মাদরা গ্রামের মৃত মালেক মন্ডলের ছেলে জাকির হোসেনের সাথে ওই জমি নিয়ে তাদের বিরোধ সৃষ্টি হয়। স্থানীয় ইউপি মেম্বর আমজাদ হোসেন ও বাজার কমিটির লোকজনের সাথে যোগসাজসে মামা জাকির তাদেরকে ওই জমি থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা চালিয়ে আসছিল। গত ১০ জুন এনিয়ে একটি শালিশী বৈঠক বসে। শালিশী বৈঠকে উপজেলা পরিষদের ভাইচ চেয়ারম্যান, সোনাবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ৯ জন মেম্বরের উপস্থিতিতে ৪১ শতকের একটি পুকুর ও ৯ শতক ভিটা বাড়িসহ মোট ৫০ শতক জমি তাদের দেয়ার জন্য লিখিত সিদ্ধান্ত হয়। এর আগে মেম্বর আমজাদ তার কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা ঘুষ নেয়। কিন্তু তার মামা ওই শালিশ না মেনে মেম্বরকে সাথে নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে থাকে। গত ১০ সেপ্টেম্বর তিনি মাদরা বাজার সংলগ্ন ওই জমিতে থাকা একটি দোকান ঘর মেরামতের চেষ্টা করলে রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাদরা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি বারিক ডাক্তার  ও ইউপি মেম্বর আমজাদের নেতৃত্বে ৩০/৪০ জন লোক তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এসময় তাদের হামালায় তার মা সুফিয়া বেগমসহ চার জন আহত হয়। এঘটনার পর শুক্রবার কলারোয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করলে পরদিন শনিবার বিভিন্ন পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হয়।
আলাউদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, পত্রিকায় খবর প্রকাশ হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে মেম্বর আমজাদ ২০/২৫ জন লোক নিয়ে শনিবার রাত ৮ টায় মাদরা মোড়ে একটি সমাবেশ করে। সমাবেশে আমজাদ ফের তার বাড়িঘর ভাংচুর করে উচ্ছেদ পূর্বক তাদেরকে (আলাউদ্দিন) গ্রাম ছাড়া করার ঘোষনা দেয়। তার ইজারা নিয়ে ১৬ বিঘা জমিতে লাগানো কুল গাছ তারা কেটে সাবাড় করে দিবে বলেও হুমকি দেয়। রাতে সমাবেশের পর থেকে মারিপটি করার জন্য মেম্বরের লোকজন তাকে খুজে বেড়াচ্ছে। ফলে ভয়ে মা’কে নিয়ে তিনি বাড়ি ছাড়া হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।
তিনি বৃদ্ধা মা’কে নিয়ে যাতে শান্তিপূর্ন ভাবে নিজের জমিতে বসবাস করে তার ব্যবসা পরিচালনা করতে পারেন তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।