কলারোয়ায় এসএসসি’র ফরম ফিলআপ বাতিল করায় দুই পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যার চেষ্টা !


325 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় এসএসসি’র ফরম ফিলআপ বাতিল করায় দুই পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যার চেষ্টা !
নভেম্বর ২৬, ২০১৮ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান ::

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় আসন্ন এসএসসি পরীক্ষার ফরম ফিলআপ বাতিল করায় দুই পরীক্ষার্থী চেতনানাশক ঔষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। অচেতন অবস্থায় তারা কলারোয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ফরম ফিলআপ বাবদ দেয় ৪হাজার ৬’শ টাকা ফেরত দেয়ায় সোমবার বিকালে ওই দুই পরীক্ষার্থী এ ঘটনা ঘটায়। আত্মহত্যার চেষ্টাকারী ওই দুই পরীক্ষার্থী হলো- কলারোয়া বাজারের বাসিন্দা উপজেলার কাজিরহাট কলেজের প্রভাষক বিএম সিরাজুল ইসলামের মেয়ে সাদিয়া আফরিন দোলা (১৬) ও পৌরসদরের গদখালী গ্রামের মামুন হোসেনের মেয়ে ফারজানা আক্তার মিম (১৬)।
কলারোয়া হাসাপাতালে সরেজমিনে গেলে সেখানে অবস্থানরত ফরম ফিলআপ বাতিল হওয়া অপর দুই পরীক্ষার্থী ফজিলাতুন্নেছা দিশা ও ফারজানা জামান দিশা জানান- ‘ওই দুই অসুস্থ্য বান্ধবীসহ আমরা ৬জন বান্ধবী ফরম ফিলআপ বাবদ প্রত্যেকেই স্কুলে ৪হাজার ৬’শ টাকা করে জমা দেই। কিন্তু ফরম ফিলআপের শেষ দিন ২২নভেম্বর স্কুল থেকে একেক দিন একেক জনের জমাকৃত টাকা ফেরত দিয়ে বলে দেয়া হয় যে, তোমাদের ফরম ফিলাম করা সম্ভব হবে না। এরপর তারা স্কুলের প্রধান শিক্ষক বদরুজ্জামান বিপ্লব, সহকারী প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান, পরিচালনা পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আমজাদ হোসেনসহ স্কুলের সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ করেও কোন ফল না পাওয়ায় সোমবার (২৬নভেম্বর) আমাদের দুই বান্ধবি দোলা ও মিম চেতনানাশক ঔষধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।’
অসুস্থ্য দোলার পিতা বিএম সিরাজুল ইসলাম জানান- ‘সোমবার দুপুরের ভাত খেয়ে মেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ঘুমন্ত মেয়েকে ডাকতে গেলে কোন সাড়াশব্দ না পাওয়ায় তাৎক্ষনিকভাবে মেয়েকে কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর পরপরই দোলার আরেক বান্ধবী মিমকেও একই অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’
এ ব্যাপারে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত নার্গিস ফাতেমা জানান- ‘তারা ঘুমের ট্যাবলেট খেয়েছে। আশংকাজনক থাকলেও বর্তমানে তাদের অবস্থা কিছুটা উন্নতি হয়েছে।’
স্কুলের প্রধান শিক্ষক বদরুজ্জামান বিপ্লব জানান- ‘ফরম ফিলআপ বাবদ ৪হাজার ৬’শ টাকা গ্রহণ বা ফেরতের বিষয়টি আমি জানি না। তবে তারা নির্বাচনী (টেস্ট) পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় তাদের ফরম ফিলআপ করা সম্ভব হয়নি।’
##