কলারোয়ায় কলেজ শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ


435 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় কলেজ শিক্ষকের বিরুদ্ধে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ
জুন ৫, ২০১৮ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান ::
সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায় বোয়ালিয়া মুক্তিযোদ্ধা কলেজের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ৫ শিক্ষার্থীর উপবৃত্তির ২১ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তদন্তের পর অভিযুক্ত প্রভাষক আলতাপ হোসেনকে ৭ দিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।
কলেজ সুত্র জানায়, গত ২৯ এপ্রিল স্থানীয় বিভিন্ন দৈনিকে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কলেজের ৫ শিক্ষার্থীর উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের চেষ্টার সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরপর বিগত ২০১৬-২০১৭ শিক্ষা বর্ষের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাত করা হয়েছে কিনা তা নিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা খোজ খবর শুরু করে। এক পর্যায়ে ধরা পড়ে বিএম শাখার প্রভাষক আলতাপ হোসেন তার ০১৮৬২-৫২১৯৭০ মোবাইল দিয়ে পাপিয়া খাতুনের, ০১৭১৯-৫৬৪৮৭১ নম্বর মোবাইল দিয়ে গোয়ালচাতর গ্রামের মুক্তা খাতুনের, ০১৭৪৩৩৮৮৯২০ মোবাইল নম্বর দিয়ে গোয়ালচাতর গ্রামের জাহাঙ্গীরের, ০১৭৭৯-৪৬৯৮৫০ মোবাইল নম্বর দিয়ে বোয়ালিয়া গ্রামের জাহিদ হাসানের এবং ০১৭৬২-৩৭৫১৩৫ মোবাইল নম্বর দিয়ে বোয়ালিয়া গ্রামের আবুল কালামের নামে দুই বছরে ৪ হাজার ২০০ টাকা হারে মোট ২১ হাজার টাকা উত্তোলন করে আত্মসাত করেছে।
এছাড়া এরইমধ্যে প্রভাষক আলতাপ হোসেন বিধিবর্হিভূত ভাবে কুষ্টিয়ায় অবস্থানরত তার ছোট ভাই ইকবালের স্ত্রী পাপিয়া খাতুনকে এই কলেজে ভর্তি দেখায়ে তার নামে উপবৃত্তির টাকা তুলে আত্মসাত করেছে বলে নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক কতিপয় শিক্ষক জানান।
এ ব্যাপারে প্রভাষক আরতাপ হোসেন জানান, তিনি কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মোতাবেক এসব কাজ করেছেন।
কলেজ অধ্যক্ষ ফারুক হোসেন সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের জন্য প্রভাষক আলতাপ হোসেনকে ৭ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।