কলারোয়ায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ঘর পেল আরো ২০ জন ভূমিহীন


103 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় দ্বিতীয় পর্যায়ে ঘর পেল আরো ২০ জন ভূমিহীন
জুন ২০, ২০২১ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান ::

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় মুজিববর্ষে সরকারের উপহার হিসেবে দ্বিতীয় পর্যায়ে উপজেলার ২০ জন গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে ঘর পেল। ২০ জুন (রোববার) এসব পরিবার বিনামূল্যে দুই শতক জমিসহ সেমি পাঁকাঘর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের পর কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু ও উপজেলা নির্বাহি অফিসার( ইউএনও) জুবায়ের হোসেন চৌধুরী ২০জন ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মধ্যে ১৫ জনের হাতে ঘরের চাবী দলিলসহ একটি করে ফোল্ডার তুলে দেন। অবশিষ্ট ৫ টি ঘরের কাজ চলমান রয়েছে। নির্মান কাজ শেষে ওই ৫ জনের ঘর তাদেরকে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার( ইউএনও) জুবায়ের হোসেন চৌধুরী।
প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র মাস্টার মনিরুজ্জামান বুলবুল, সহকারী কমিশনার ভূমি আক্তার হোসেন, কলারোয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার গোলাম মোস্তফা , উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের (ইউ এইচ ও এফ পিও) ডা. জিয়াউর রহমান, উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ড. অমল কুমার সরকার, সিনিয়র মৎস্য অফিসার রবীন্দ্রনাথ মন্ডল, কলারোয়া পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম নুরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান স ম মোরশেদ আলী, মনিরুজ্জামান, মনিরুল ইসলাম মনি, উপজেলা প্রশাসনের সকল দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ, ও সাংবাদিকবৃন্দ।

কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা অর্জনের পর সর্বপ্রথম জাতির পিতাই দেশের ভূমিহীন-গৃহহীন-ছিন্নমূল অসহায় পরিবার পুনর্বাসনের উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিজস্ব উদ্যোগে ১৯৯৭ সালে শুরু হওয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে সারা দেশে ভূমিহীন, গৃহহীন ও ছিন্নমূল পরিবার পুনর্বাসনের লক্ষ্যে কার্যক্রম চলমান রয়েছে। মুজিববর্ষে ‘বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে দেশের সব ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম চলছে।
আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় ১৯৯৭ সাল থেকে মে ২০২১ পর্যন্ত সময়ে মোট ৩ লাখ ৭৩ হাজার ৫৬২টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

দেশে ‘ক’ শ্রেণিতে গৃহহীণ ও ভূমিহীনের সংখ্যা ২ লাখ ৯৩ হাজার ৩৬১ এবং ‘খ’ শ্রেণিতে ৫ লাখ ৯২ হাজার ২৬১ জন জানিয়ে লাল্টু বলেন, আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই আরও ১ লাখ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে বিনামূল্যে জমিসহ ঘর দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার।
রোববার ১৫ জন উপকারভোগীর হাতে তাদের প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে ২ শতক জমি একটি সেমি পাকা ঘর হস্তান্তরের পর প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করা হয়।