কলারোয়ায় প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে ১ যুবক নিহত : আহত-১


312 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে ১ যুবক নিহত : আহত-১
অক্টোবর ২৭, ২০১৫ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ইব্রাহিম খলিল / কে এম আনিছুর রহমান :
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় লাগানো গাছ কাটতে বাধা দেওয়ায় ইমামুল নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।
এ সময়  নিহতের আরেক ভাই একরামুলকে বাঁশের লাটি দিয়ে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে জখম করা হয়েছে। আহত একরামুল বর্তমানে কলারোয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তারা দুই ভাই উপজেলার রায়টা গ্রামের ইউনুছ আলী বিশ্বাসের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার বিকালে ওই গ্রামে।

সরেজমিনে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়, নিহত ইমামুলের চাচা মৃত ইউসুফ বিশ্বাসের ছেলে আনিছুর রহমান তার পৈত্রিক সম্পত্তিতে কয়েকদিন আগে ২০টি মেহগনি গাছ রোপন করে।

এরই জের ধরে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে একই গ্রামের প্রতিবেশী চাচা মৃত আছির বিশ্বাসের ছেলে আব্দুস সালাম ওরফে ন্যাটার জমির ফসল ক্ষতি হবে বলে আনিছুর রহমানের ওই লাগানো মেহগনি গাছসহ পাশের আরেক জমিতে কয়েক বছর আগে লাগানো গাছ কাটা শুরু করে।

এ সময় ইমামুল ও একরামুল চাচা আনিছুর রহমানের লাগানো গাছ কাটতে বাধা দেওয়ায় ন্যাটার ছেলে বাবলু ও মৃত ফাজেল বিশ্বাসের ছেলে আব্দুল হামিদ,হামিদের বোন জামাই অজিয়ার রহমান, বোন আকলিমা ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাঁশের লাটি দিয়ে ওই দুই ভাইকে এলোপাতাড়ী মারপিট শুরু করে। এক পর্যায়ে বাবলুর লাটির আঘাতে এমামুল ও ইকরামুল মাথা ফাটাসহ রক্তাক্ত গুরুতর জখম হয়। পরে স্থানীয় লোকজন আহত দুই ভাইকে উদ্ধার করে কলারোয়া হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার ইমামুলকে মৃত বলে ঘোষনা করেন।

এ ব্যাপারে কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) শেখ শফিকুর রহমান জানান, খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। হত্যাকারীরা বর্তমানে পলাতক রয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল বলে তিনি জানান।