কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলা মামলা, ছয় আসামীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর


357 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলা মামলা, ছয় আসামীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর
জুলাই ১২, ২০১৫ কলারোয়া
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল হক :
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলায় ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় ৬ আসামীর জামিন নামঞ্জুর করেছে আদালত। রোববার দুপুরে আসামী পক্ষের আইনজীবী জামিন শুনানি করলে সরকারি কৌশলী (পিপি) এড. ওসমান গণির তীব্র বিরোধীতায় জেলা ও দায়রা জজ জোয়ার্দ্দার মোঃ আমিনুল ইসলাম তাদের জামিন বাতিল করেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সকাল ১০টার দিকে তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কলারোয়া উপজেলার চন্দনপুর ইউনিয়নের হিজলদী গ্রামের এক মুক্তিযোদ্ধার ধর্ষিতা স্ত্রী মাহফুজাকে দেখতে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে আসেন। সেখান থেকে যশোরে ফিরে যাওয়ার পথে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কলারোয়া উপজেলা বিএনপি অফিসের সামনে জেলা বিএনপি’র তৎকালীন সভাপতি ও সংসদ সদস্য হাবিবুল ইসলাম হাবিব ও বিএনপি নেতা রঞ্জুর নির্দেশে বিএনপি-যুবদল-ছাত্রদলে নেতা কর্মীরা দলীয় অফিসের সামনে একটি যাত্রীবাহি বাস (সাতক্ষীরা-জ-০৪-০০২৯) রাস্তার উপরে আড় করে দিয়ে তাঁর গাড়ি বহরে হামলা চালায়। দীর্ঘ ১২ বছর পর গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় ২০১৪ সালের ১৫ অক্টোবর কলারোয়া থানায় ২৭ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। প্রধানমন্ত্রীর গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় অস্ত্র ও বিষ্ফারক আইনে ৫০ জন বিএনপির নেতা কর্মীকে অভিযুক্ত করে আদালতে চাজর্শীট দাখিল করা হয়েছে। এঘটনায় রোববার দুপুরে মামলার আসামী কলারোয়া উপজেলার বৈদ্যপুর গ্রামের জামাল সালার পুত্র সিরাজুল ইসলাম, লাল শেখের পুত্র শেখ কামরুল ইসলাম, কলারোয়ার মৃত. ইউসূফ আলী মুন্সির পুত্র ইয়াছিন আলী, রামকৃষ্ণপুর গ্রামের শাহিদুল ইসলামের পুত্র শাহিনুর রহমান, ওফাপুর গ্রামের ফজলু মোল্লার পুত্র মাহফুজুর রহমান এবং গাজনা গ্রামের রফিক শানার পুত্র সোহাগ হোসেনের পক্ষে এড. এম শাহ আলম ক্রিমিনাল মিসকেস ১৪৫৫/১৫ মামলায় জেলা ও দায়রা জর্জ আদালতে জামিন শুনানি করেন। শুনানিতে রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী সরকারি কৌশলী (পিপি) এড. ওসমান গণি তীব্র বিরোধীতা করে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। বিচারক জোয়ার্দ্দার মোঃ আমিনুল ইসলাম উভয় পক্ষের যুক্ততর্ক শুনে জামিন নামঞ্জুরের আদেশ দেন। রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী সরকারি কৌশলী (পিপি) এড. ওসমান গণি জানান, মামলার ১৪৭/ ১৪৮/ ৩২৩/ ৩২৬/ ৩০৪/ ৩৫৪/ ৩৭৯/ ৪২৭/ ৪৪০/ ৫০০ /৪৬০(২)/ ১৪৯ পিসি ধারায় শুনানি করলে রাষ্ট পক্ষের আইনজীবীদের বিরোধীতার মুখে জামিন বাতিল হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন এপিপি এড. তৌহিদুর রহমান শাহীন। প্রসঙ্গত, গত ১ জুলাই মামলায় কলারোয়া পৌরসভার সদ্য বরখাস্ত হওয়া মেয়র আক্তারুল ইসলাম, যুগিখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক রকিবুল ইসলাম, তুলসিডাঙ্গা গ্রামের আলতাফ হোসেন ও গদখালি গ্রামের মফিজুল ইসলাম আত্মসমার্পন করলে তাদের জামিন বাতিল হয়।