কলারোয়ায় ভারতীয় দুই নাগরিকসহ ৬ ব্যক্তি আটক


466 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় ভারতীয় দুই নাগরিকসহ ৬ ব্যক্তি আটক
আগস্ট ২০, ২০১৬ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া :
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় পুলিশ ও বিজিবি পৃথক অভিযানে ভারতীয় দুই মহিলা নাগরিকসহ ৬ ব্যক্তিকে আটক করেছে। শনিবার সকালে উপজেলার কেঁড়াগাছি সীমান্ত ও চন্দনপুর ইউনাইটেড কলেজের সামনে থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলো- ভারতের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার হাবড়া থানার গোবরডাঙ্গা গ্রামের শরজিৎ দাসের স্ত্রী নারয়নী দাস (৫০),একই জেলার গাইঘাটা থানার ঠাকুর নগর গ্রামের অণীল বালার স্ত্রী শান্তি বালা (৪৫), কলারোয়া উপজেলার বৈদ্যপুর গ্রামের মৃত জামাল উদ্দীনের ছেলে সিরাজুল ইসলাম সিরাজ (৫২), বড়ালী গ্রামের হাফিজ উদ্দীনের ছেলে আবু মুছা (৩৫), ব্রজবকস গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৩৮), সোনাবাড়িয়া গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে বাচ্চু হোসেন (২১)।
উপজেলার কাকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের লান্স নায়েক এনামুল হক জানান, শনিবার দুপুর একটার দিকে  তার নেতৃত্বে কেঁড়াগাছি সীমান্তের মেইন পিলার ১৩/৩ এস এর ৩ আরবির নিকট  টহলকালে ভারতীয় ওই দুই নাগরিক অবৈধভাবে বাংলাদেশ অভ্যন্তরে প্রবেশ করে। এ সময় বিজিবি সদস্যরা তাদেরকে আটক করলে তারা কোন বৈধ কাগজ পত্র না দেখাতে পারায় তাদেরকে থানা পুলিশে সোর্পদ করা হয়। এ ব্যাপারে কলারোয়া থানায় একটি মামলা হয়েছে। যার নং- ২২।
অপরদিকে কলারোয়া থানার এস আই মহিদুল ইসলাম জানান, শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে তার নেতৃত্বে সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার সীমান্তবর্তী চন্দনপুর কলেজের সামনে থেকে মাদক সেবন অবস্থায় ৫ পিচ ইয়াবা ও ৩ পুলিয়া গাঁজাসহ মুছা,সহিদুল ও বাচ্চুকে আটক করেন।
এ ব্যাপারে কলারোয়া থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে (যার নং- ২২ ও ২৩) বলে থানার অফিসার ইনচার্ঝ শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম জানান।
##

কলারোয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় তিন বন্ধু গুরুতর আহত
কলারোয়া প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় মোটরসাইকেল সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ বন্ধু গুরুতর আহত হয়েছে। দুর্ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুর একটার দিকে উপজেলার আলাইপুর  গ্রামের আতিয়ারের মোড়ে।
আহতরা হলো- কলারোয়া পৌর সদরের মির্জাপুর গ্রামের মৃত মন্টু আলী মিয়ার ছেলে বকুল হোসেন (১৭), একই গ্রামের ইউনুছ আলীর ছেলে আলামিন হোসেন (১৮) ও আজু  হোসেনের ছেলে মোস্তাক হোসেন (১৯)। তারা বর্তমানে কলারোয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার ওই সময় তারা উক্ত তিন বন্ধু উপজেলার ড্যাপা গ্রাম থেকে মোটরসাইকেল যোগে কলারোয়া অভিমুখে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ওই স্থানে পৌঁছালে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে রাস্তার পাশে থাকা একটি নারিকেল গাছে ধাক্কা লাগে। এ সময় তারা তিনজনই রাস্তার পাশে পড়ে মাথায় আঘাতসহ গুরুতর আহত হয়। পরে পথচারীরা তাদেরকে উদ্ধার করে কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি  করে। বর্তমানে তাদের অবস্থা শংকামুক্ত নয়।