কলারোয়ায় শিক্ষকের বেত্রাঘাতে শিক্ষার্থী আহত ॥ প্রতিকারে সংবাদ সম্মেলন


588 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় শিক্ষকের বেত্রাঘাতে শিক্ষার্থী আহত ॥ প্রতিকারে সংবাদ সম্মেলন
এপ্রিল ১৬, ২০১৭ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান, কলারোয়া ::
কলারোয়ায় স্কুল শিক্ষকের বেত্রাঘাতে আহত ও অসুস্থ হয়ে পড়া দশম শ্রেণির ছাত্রের অভিভাবক ঘটনার প্রতিকার চেয়ে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন। রোববার বেলা দেড়টার দিকে কলারোয়া প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এ সংবাদ সম্মেলনে নির্যাতিত ছাত্র আশিকুজ্জামানের অভিভাবক (খালা) মোছা: সাজেদা খাতুন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, দেরিতে স্কুলে যাওয়ার জন্য চন্দনপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনছার আলি গত শনিবার সকাল ৮ টার দিকে বেতের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি বেত্রাঘাত করেন আশিকুজ্জামানকে। আঘাতে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফোলা-জখম হয়ে যায়।

নির্যাতনের সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয। বর্তমানে সেখানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আশিকুজ্জামানের বাড়ি উপজেলার রামভদ্রপুর গ্রামে। পিতার নাম আশরাফুল জামান।

এ ঘটনায় বিচার চেয়ে  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে সাজেদা খাতুন সংবাদ সম্মেলনে জানান।

সংবাদ সম্মেলনে সাজেদা খাতুন প্রধান শিক্ষক আনছার আলির বিরুদ্ধ্ পপি গাইড বিক্রি করা, এক দিন স্কুলে অনুপস্থিত থাকলে ১৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা, পহেলা বৈশাখ পালন না করা, স্কুল ফান্ডের হিসাব না দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ উত্থাপন করেন।

এ বিষয়ে চন্দনপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনছার আলি সাংবাদিকদের জানান, আশিকুজ্জামান স্কুলের পিওন বজলুর রহমানের সাথে বেয়াদবি করায় শনিবার তাকে মারধর করেছি। এছাড়া তাঁর বিরুদ্ধে আনীত অন্যান্য অভিযোগগুলো আদৌ সত্য নয় বলে তিনি জানান।
##