কলারোয়ায় শিশু ধর্ষণের ঘটনায় মামলা : মামলা তুলে নেওয়ার হুমকীর!


329 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় শিশু ধর্ষণের ঘটনায় মামলা : মামলা তুলে নেওয়ার হুমকীর!
সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৭ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কলারোয়া প্রতিনিধি ::
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় শিশু ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করায় ধর্ষিতার পরিবারকে মামলা তুলে নেওয়ার হুমকী প্রদান করার অভিযোগ করা হয়েছে। এ ঘটনায় কলারোয়া থানায় ধর্ষকের পরিবারের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরী করে মঙ্গলবার দুপুরে ধর্ষিতার মা রিজিয়া খাতুন কলারোয়া প্রেসক্লাবে একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

লিখিত অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, গত ৯ সেপ্টেম্বর দুপুর একটার দিকে উপজেলার ১২ নং যুগিখালী ইউনিয়নের কামারালী গ্রামের নজরুল ইসলাম সানার শিশু কন্যা প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী তমাকে (০৬) একই গ্রামের প্রতিবেশী মোশাররফ হোসেনের লম্পট ছেলে আল-আমিন (১৯) ছাদের উপর উঠিয়ে ধর্ষণ করে।

এ সময় শিশুটি রক্তক্ষরণ হয়ে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকলে ধর্ষক আল-আমিন পালিয়ে যায়। পরে ধর্ষিতার পিতা ও মাতা কাজ শেষে বাড়ি ফিরে শিশু কন্যাকে অচেতন অবস্থায় প্রথমে কলারোয়া হাসপাতালে এবং পরে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা দেখে শিশুটি ধষর্নের শিকার হয়েছে বলে জানাই।

পরদিন ১০ সেপ্টেম্বর চিকিৎসারত অবস্থায় ধর্ষিতা শিশুটির জ্ঞান ফিরলে ধর্ষক আল-আমিনের নাম উল্লেখ করে ধর্ষনের সকল ঘটনা বিবরণ দেয়। এরপর গত ১৯ সেপ্টেম্বর ধর্ষিতার পিতা নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে কলারোয়া থানায় একটি (নং-১৭) মামলা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই সোলাইমানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, মামলাটি তদন্তধীন।

আসামীকে গ্রেফতার করার জন্য জোর প্রচেষ্টা চলছে। মেডিকেল সার্টিফিকেট এর জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ইতিমধ্যে জানানো হয়েছে।

ধর্ষিতার মা রিজিয়া খাতুন আরও বলেন, তারা অতি দরিদ্র মানুষ। মেয়ের উন্নত চিকিৎসা দেওয়ার প্রয়োজন হলেও অর্থের অভাবে তা সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে আসামী অজ্ঞাত ব্যক্তিদের দিয়ে বিভিন্ন সময় তাদেরকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছে।এ নিয়ে বর্তমানে তারা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।  এঘটনায়ও গত ২৩ সেপ্টেম্বর কলারোয়া থানায় একটি সাধারন ডাইরী (নং ১৩১৯) করা হয়েছে বলে অভিযোগে বলা হয়।
##