কলারোয়ায় সাংবাদিককে হুমকী দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান মনি


555 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় সাংবাদিককে হুমকী দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান মনি
মে ১০, ২০১৮ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,স্টাফ রিপোর্টার ::
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সামনে এক সাংবাদিককে হুমকী দিলেন চন্দনপুর ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম মনি। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলামকে মারপিট করার খবর পেয়ে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

হুমকীর শিকার দৈনিক ভোরের পাতা,পিপল্স টাইমস ও কালের চিত্র পত্রিকার কলারোয়া প্রতিনিধি সরদার জিল্লুর রহমান জানান, ওই ইউনিয়নের সুলতানপুর-হিজলদী রাস্তার দুই ধারে ৩১১ টি সরকারী আম গাছ আছে। ওই আম গাছ যারা পরিচর্চা করবেন তারা বিক্রিত আমের শতকরা ৫০ টাকা পাবেন। আর রাস্তার পাশে যাদের জমির ফসল ক্ষতি হবে তারা পাবেন শতকরা ৩০ টাকা এবং স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ পাবেন শতকরা ২০ টাকা। কিন্তু গত এক মাস আগে ওই সন্ত্রাসী ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম মনি কাউকে না জানিয়ে ওই আম গাছের আমগুলো ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা বিক্রি করে দেয়। ওই বিক্রি আম গত দুই দিন আগে ক্রেতারা পাড়তে গেলে ওই ইউপি সদস্য নজরুল,ক্ষেত মালিক এবং গাছ পরিচর্চাকারীরা চেয়ারম্যানের নিকট আম বিক্রির বিষয়টি জানতে চায়। তখন চেয়ারম্যান বলেন, আম বিক্রি করা হয়েছে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। এরই প্রতিবাদ করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীনকে বিষয়টি জানায় ওই ইউপি সদস্য। এতে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ইউনিয়ন পরিষদে ওই ইউপি সদস্যকে মারপিট করে আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন ইউপি সদস্যকে উদ্ধার করে কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় তিনি ঘটনাস্থলে সরেজমিনে সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে উপজেলা নিবার্হী অফিসারের সামনে তাকে হুমকী-ধামকী দিয়ে সংবাদ সংগ্রহের কাজে বাধা দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলামের সাথে ০১৭১৬-৭১৭৯২২ নং মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি মোবাইল রিসিভ করেননি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন জানান, হুমকী ঠিক না, দুই জনের মধ্যে তর্ক বির্তক হয়েছে। তবে আমি চেয়ারম্যানকে বলেছি সাংবাদিকের সাথে এ ধরণের আচরণ না করে। যদি সাংবাদিক ভুল তথ্য দেয়, তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারেন। কিন্তু এ ধরণের আচরণ ঠিক না।

##