কলারোয়ায় সোনালী ব্যাংকে নিহত দুই আনসার সদস্যের পরিবারকে সাড়ে ১০ লাখ টাকার চেক প্রদান


495 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় সোনালী ব্যাংকে নিহত দুই আনসার সদস্যের পরিবারকে সাড়ে ১০ লাখ টাকার চেক প্রদান
আগস্ট ১৭, ২০১৫ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া প্রতিনিধি :
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় সোনালী ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় নিহত দুই নৈশ প্রহরীর (আনসার সদস্য) পরিবারকে সাড়ে ১০ লাখ টাকার চেক দেয়া হয়েছে। সোমবার সকালে কলারোয়া সরকারী কলেজ বাসস্টান্ড সংলগ্ন সোনালী বাংক শাখায় নিহত দুই আনসার সদস্যের পরিবারকে সোনালী ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ আর্থিক সাহায্যের চেক প্রদান করা হয়।
সোমবার সকাল ১০ টায় কলারোয়া সোনালী ব্যাংক শাখার আয়োজনে ব্যাংক ব্যবস্থাপক মনোতোষ সরকারের সভাপতিত্বে চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা সোনালী ব্যাংকের  জেনারেল ম্যানেজার নেপাল চন্দ্র সাহা। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা সোনালী ব্যাংকের প্রিন্সিপাল শাখার ডিপুটি জেনারেল ম্যানেজার খান শহীদুল ইসলাম, কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনুপ কুমার তালুকদার, থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম, ব্যাংকের নৈশ প্রহরী নিহত জাহাঙ্গীর হোসেনের পিতা আব্দুল কাইয়ুম ও নিহত আসাদুর রহমানের পিতা আনারুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কলারোয়া সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মনোতোষ সরকার।
সাতক্ষীরা সোনালী ব্যাংক প্রিন্সিপাল শাখার সিনিয়র কর্মকর্তা জেসমিন আক্তারের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তালা সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ আবু বকর সিদ্দিক,  প্রথম আলোর নিজস্ব  প্রতিনিধি কল্যাণ ব্যানার্জী, কলারোয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি শিক্ষক দীপক শেঠ, সাধারণ সম্পাদক সম্পাদক শেখ জুলফিকারুজ্জামান জিল্লু,সাংবাদিক কে এম আনিছুর রহমান, এম এ সাজেদ, প্রধান শিক্ষক রাশেদুল হাসান কামরুল, আনোয়ার হোসেন,রব্বানী সাহেব, ইসলামী ব্যাংকের ম্যানেজার আবুল হোসেন, বিআরডিপির সভাপতি আব্দুল গফুর,ব্যাংক কর্মকতা আব্দুর রাজ্জাক, মীর শাহাজাদ, সহিদুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম,হারুন-অর-রশীদ, ছদরউদ্দীন, আব্দুর রহিম, কিশোর প্রমুখ। আলোচনা শেষে সোনালী বাংকের পক্ষ থেকে নিহত জাহাঙ্গীরের পিতা হাতে ২ লক্ষ টাকার চেক ও স্ত্রী সুমাইয়াকে ৩ লক্ষ টাকার চেক এবং নিহত আসাদুর রহমানের পিতাকে ২ লক্ষ টাকার চেক ও স্ত্রী রিমাকে ৩ লক্ষ টাকার চেক প্রদান করা হয়।
প্রসঙ্গত. গত ১৪ জুলাই দিবাগত (সবে কদর রাতে) রাতে কলারোয়া সোনালী ব্যাংক শাখায় ডাকাতির সময় বাধা দেওয়ায় নৈশ প্রহরী ওই দুই আনসার সদস্যকে জবাই করে হত্যা করা হয়। কিন্তু ঘটনার একমাস পেরিয়ে গেলেও ডিবি পুলিশ আজও নৃশংস খুনের সাথে জড়িতদের সনাক্ত করতে পারেনি বলে  জানা যায়। তবে একাধিক ক্লু নিয়ে পুলিশ মাঠে রয়েছে।