কলারোয়া উপজেলা আ’লীগের সা.সম্পাদকের সংবাদ সম্মেলনের প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলন


376 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়া উপজেলা আ’লীগের সা.সম্পাদকের সংবাদ সম্মেলনের প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলন
জানুয়ারি ৩, ২০১৬ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া(সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি
সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টুর সংবাদ সম্মেলনের প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। রোববার বিকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন করেন কলারোয়া পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম। সংবাদ সম্মেলনে তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, দলের উপজেলার আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টু সম্প্রতি সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের বক্তব্যকে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট দাবি করে তিনি বিষ্মিত ও হতবাক হয়েছেন।
লিখিত বক্তব্যে পৌর আ.লীগের সা.সম্পাদক শহিদুল ইসলাম  আরো বলেন, সদ্য অনুষ্ঠেয় কলারোয়া পৌরসভা নির্বাচনে আমাদের সকলকে নিয়ে উপজেলা আ.লীগের সভাপতি ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, সা.সম্পাদক ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থী আমিনুল ইসলাম লাল্টু পৌরসভা কমিটির সা.সম্পাদক শহিদুল ইসলাম যৌথভাবে ও কখনো আলাদাভাবে আমাদের এলাকায় একাধিকবার নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন। গত ১২ ডিসেম্বর’১৫ তারিখে বিকেলে দলের বর্ধিত সভায় যেখানে জেলা আ.লীগের সভাপতি ও সা.সম্পাদকের উপস্থিতিতে আমিনুল ইসলাম লাল্টু মাইকে বক্তৃতা দেয়ার সময় বলেছিলেন, ‘কলারোয়া পৌরসভায় ভোটের সংখ্যা ১৯ হাজার সেখানে নৌকার ভোট মাত্র ৫ হাজার’- এ গোপন তথ্যটি জনসম্মুখে প্রকাশ করে নিজেদের দূর্বলতার কথা জনগণ ও বিরোধীপক্ষকে জানিয়ে নিজেদের ক্ষতি করেছেন।
তিনি আরো বলেন, ২০১১সালের পৌর নির্বাচনে দল সমর্থিত প্রার্থী শেখ আমজাদ হোসেনের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছিলেন তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী আফম রুহুল হক, সাবেক তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ, তৎতকালীন সাংসদ প্রকৌশলী শেখ মুজিবুর রহমান, তৎতকালীন উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, দলের আহবায়কসহ নেতাকর্মীরা। কিন্তু আমজাদ হোসেন সাহেব পেয়েছিলেন ২৬’শ ভোট। আর এবার ২০১৫সালের পৌর নির্বাচনে দল মনোনীত প্রার্থী আমিনুল ইসলাম লাল্টু পেয়েছেন ৩৬’শ ভোট।
পৌর আ.লীগের সা.সম্পাদক এ ছাড়া আরো বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থী আরাফাত হোসেন নির্বাচনী প্রচারণায় ফিরোজ আহম্মেদ স্বপনকে আক্রমন করে তার সম্পর্কে অশ্লীল উক্তি করেছেন। আমাদের ধারণা আমিনুল ইসলাম লাল্টু অন্যের প্ররোচনায় ও অসুস্থ্য মস্তিষ্কে সংবাদ সম্মেলনে যে অসত্য বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন তাতে দলকে হেয় করার শামিল। সংগঠনের স্বার্থে তার এই বক্তব্য প্রত্যাহার করার দাবিও জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আ.লীগের সাবেক আহবায়ক সাজেদুর রহমান খাঁন চৌধুরী মজনু, দেয়াড়া ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা প্রভাষক আব্দুল মান্নান, কুশোডাঙ্গা ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান  আ’লীগ নেতা আসলামুল আলম, জয়নগর ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান  আ’লীগ নেতা ফিরোজ আহম্মেদ, নবনির্বাচিত পৌর কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান বুলবুল, কাউন্সিলর মফিজুল ইসলাম, কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম, কাউন্সিলর মেজবাহউদ্দীন লিলু, কাউন্সিলর আলফাজ হোসেন, কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেন, কাউন্সিলর আকিমুদ্দিন আকি, মহিলা কাউন্সিলর ফারহানা হোসেন, মহিলা কাউন্সিলর সন্ধ্যা রাণী বর্মণ, মহিলা কাউন্সিলর লুৎফুন্নেছা লুতু, বিভিন্ন ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত হোসেন, আফছার আলী, রনজিৎ কুমার ঘোষ, লতিফ সরদার, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কাজী সাহাজাদাসহ কলেজ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।