উপাধ্যক্ষ ওবায়দুল্লাহ গয্নফরের সন্ধান চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারক লিপি পেশ


480 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
উপাধ্যক্ষ ওবায়দুল্লাহ গয্নফরের সন্ধান চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারক লিপি পেশ
অক্টোবর ১২, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার :
সাতক্ষীরার কলারোয়া থেকে অপহ্নত জমঈয়তে আহলে হাদীসের কেন্দ্রীয় নেতা উপাধ্যক্ষ (অব:) মাওলানা ওবায়দুল্লাহ জয্নফরের সন্ধান চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্বারক লিপি প্রদান করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে জেলা জমঈয়তে আহলে হাদীসের পক্ষ থেকে ওই স্বারক লিপি দেয়া হয়। স্বারক লিপির অনুলিপি দেয়া হয়েছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী, স্বরাষ্ট সচিব ,পুলিশের আইজি, খুলনার ডিআইজি ও সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারকে।

এদিকে, উপাধ্যক্ষ ওবায়দুল্লাহ গয্নফর নিখোঁজের ১০ দিন অতিবাহিত হলেও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তার কোন সন্ধান বের করতে না পারায় তার পরিবারের সদস্যরা উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে দিনাতিপাত করেছে। পরিবারের সদস্য অবিলম্বে উপাধ্যক্ষ ওবায়দুল্লাহ গয্নফরের সন্ধান পাওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সোমবার সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর পাঠানো ওই স্বারক লিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ২ অক্টোরব সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে সাতক্ষীরা-যশোর সড়কের কলারোয়া উপজেলার তুলসিডাঙ্গা এলাকা থেকে সাতক্ষীরা জেলা জমঈয়তে আহলে হাদীসের সেক্রেটারী ও কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক উপাধ্যক্ষ ওবায়দুল্লাহ গয্নফরকে একটি মাইক্রোবাসে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায় অজ্ঞাত পরিচয়ের কয়েক জন লোক ।  সাতক্ষীরা জেলা শহরের পলাশপোল গ্রমে তার বাড়ি।

২ অক্টোবর শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে তার ওবায়দুল্লাহ গয্নফর ও অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা খলিলুর রহমান মোটরসাইকেলযোগে বাঁগআচড়া বোডখানায় যাচ্ছিল। জমঈয়তে আহলে হাদীসের একটি সাংগঠনিক সম্মেলনে যোগ দেয়ার জন্য তিনি বাড়ি থেকে রওনা হন। কলারোয়ার তুলশিডাঙ্গা এলাকায় পৌছানোর পর পিছন দিক থেকে পরপর ২টি মাইক্রোবাস এসে তার গতিরোধ করে। এ সময় তিনি মোটরসাইকেল থামালে সাদা পোশাকধারী কয়েকজন ব্যক্তি ওই মাইক্রোবাস থেকে বেরিয়ে এসে তার হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে  মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নিয়ে দ্রুত যশোরের দিকে চলে যায়। এর পর থেকে তার কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না।

স্বারক লিপিতে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, ঘটনার দিন বিকেলে ওবায়দুল্লাহ গয্নফরের মেয়ে প্রভাষক মাহমুদা আক্তারী মুন্নী বাদি হয়ে কলারোয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। যার নং ৫। কিন্তু পুলিশ আজও তাকে উদ্ধার করতে পারেনি।

স্বারক লিপিতে সাতক্ষীরা জেলা জমঈয়তে আহলে হাদীসের ৪০ জন নেতা-কর্মী স্বাক্ষর করেন। এছাড়া