কলারোয়ায় একমন ধানে সোয়া এক কেজি গরুর মাংস !


612 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়ায় একমন ধানে সোয়া এক কেজি গরুর মাংস !
মে ১৩, ২০১৬ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া :
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে ধানের আশানুরূপ ফলন ভাল হলেও ধানের বাজার ধর কম হওয়ায় কৃষকদের প্রতি বিঘা জমিতে লোকসান হচ্ছে দেড় থেকে ২ হাজার টাকা। কৃষকরা একমন ধান বিক্রি করেও কিনতে পারছে না সোয়া এক কেজি গরুর মাংস। কলারোয়া উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি মন মোটা ধান বিক্রি হচ্ছে ৫০০ টাকা থেকে সাড়ে ৫০০ টাকা এবং চিকন ধান বিক্রি হচ্ছে সাড়ে ৬০০ থেকে সাড়ে ৬০০ টাকা । অপরদিকে গরুর মাংস প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে সাড়ে ৪০০ টাকা। বিষয়টি নিয়ে কলারোয়ার কামারালী  গ্রামের মৃত ছোবহান মোড়লের ছেলে  আব্দুল খালেকের সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান, এক বিঘা জমি লিজ নিয়ে ইরি-বোরো আবাদ করে তার দেড় থেকে সাড়ে ২ হাজার টাকা লোকসান হয়েছে। বামনালী গ্রামের মৃত বনমালির ছেলে আব্দুল গফুর জানান, চিকন ধানের দর একটু বেশী হলেও ফলনে কম হওয়ায় লোকসানের পরিমান প্রায় একই। গত আমন মৌসুমেও কৃষকরা ধান চাষ করে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছিলেন। এ দিকে সরকারী ভাবে কৃষকদের নিকট থেকে ধান ক্রয়ের কথা থাকলেও এখনও পর্যন্ত তা ক্রয় করা শুরু না হওয়ায় কৃষকদের মাঝে চাপা ক্ষোপ বিরাজ করছে। তবে গত বৃহস্পতিবার কলারোয়া খাদ্যগুদামে সরকারী ভাবে ধান সংগ্রহের উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন।

##

 

কলারোয়ায় এক ব্যক্তির আতœহত্যা

কলারোয়ায় প্রতিনিধি:
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় আব্দুস সামাদ নামে এক ব্যক্তি গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহত্যা করেছে। তিনি কলারোয়া পৌরসদরের গদখালি ৩নং ওয়ার্ডের মৃত ময়নুদ্দীন সরদারের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার ভোর রাতে । পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে আব্দুস সামাদ (৫০) পেটের ব্যথায়  ভুগছিলেন। গত বৃহস্পতিবার  ভোর রাতে পেটের ব্যাথা সইতে না পেরে বাড়ির পুকুরের পাশে একটি আম গাছে  গলায় ফাঁস দিয়ে আতœহত্যা করে। এ ব্যাপারে কলারোয়া থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

##

 

সীমান্তে ভারতীয় কাপড় ও জিরা উদ্ধার
কলারোয়া প্রতিনিধি:
সাতক্ষীরার তলুইগাছা সীমান্তে চোরাচালনীদের তাড়া করে ভারতীয় উন্নতমানের থান কাপড় ও জিরা উদ্ধার করেছে বিজিবি। তবে এ সময় বিজিবি সদস্যরা কাউকে আটক করতে পারেনি। সাতক্ষীরার সদর থানার তলুইগাছা ক্যাম্পের হাবিলদার আকরাম জানান,তার নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার রাতে তলুইগাছা গ্রামের মধ্যে টহলরত বিজিবি সদস্যরা একদল চোরাচালানীদের তাড়া করে। এ সময় চোরাকারবারিরা কাছে থাকা বস্তা ফেলে পারিয়ে যায়। পরে বস্তা থেকে ভারতীয় উন্নত মানের ২ গাইড থান কাপড় ও ৪ বস্তা জিরা উদ্ধার করে। যার আনুমানিক মুল্য দেড় লাখ  টাকা।