কলারোয়া সংবাদ ॥ “নগদ” উদ্যোক্তা মোবাইল ব্যাংকিং সমাবেশ


157 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়া সংবাদ ॥ “নগদ” উদ্যোক্তা মোবাইল ব্যাংকিং সমাবেশ
জুলাই ২৮, ২০১৯ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান ::

বাংলাদেশ ডাক বিভাগের উদ্যোগে সাতক্ষীরার কলারোয়ায় নগদ উদ্যোক্তা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার বিকালে উপজেলা মিলনায়তনে সহজ এবং দ্রুততম সময়ে ডিজিটাল ব্যাংকিং সকল শ্রেণীর মানুষের কাছে পৌছায়ে দিতে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ডিজিটাল পদ্ধতিতে মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিসে এতো দিন শুধু বেসরকারি খাতের নিয়ন্ত্রণে থাকলেও এবার সরকারিভাবে চালু হয়েছে ডিজিটাল পদ্ধতির এই নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস। এ খাতে নতুন সংযোজন ”নগদ”। ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাবান্ধব মোবাইল ব্যাংকিং সেবাটি নিয়ে এসেছে সরকারের ডাক বিভাগ। বাংলাদেশ ডাক বিভাগের ডিজিটাল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ব্যবহার করলে গ্রাহক ক্যাশ ইন অথবা ক্যাশ আউট এর ক্ষেত্রে গ্রাহক প্রতিবার সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা এবং সর্বমোট ১০ বারে আড়াই লাখ টাকা দৈনিক লেনদেন করতে পারবেন। এভাবে মাসে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা ক্যাশ ইন অথবা ক্যাশ আউট করতে পারবেন সর্বোচ্চ ৫০ বারে। নগদ অ্যাকাউন্ট এর মাধ্যমে গ্রাহকরা শুধু ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট নয়, সেন্ড মানি, টপ আপ (মোবাইল অ্যাকাউন্ট রিচার্জ) সুবিধাও গ্রহণ করতে পারবেন। ক্যাশ ইন এর জন্য গ্রাহককে কোন ধরনের চার্জ প্রদান করতে হবে না। তবে ক্যাশ আউটের ক্ষেত্রে গ্রাহককে প্রতি হাজারে ১৮ টাকা চার্জ প্রদান করতে হবে। নগদ অ্যাপ এর মাধ্যমে ক্যাশ আউট করা হলে প্রতি হাজারে ১৭ টাকা চার্জ প্রযোজ্য হবে। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন-বাংলাদেশ ডাক বিভাগের “নগদ” ফিনান্সিয়াল সার্ভিস ঢাকার ক্লাস্টার হেড সাইফুল আলম, মার্কেটিং অফিসার মহায়মিনুল ইসলাম, খুলন বিভাগের এরিয়া ম্যানেজার শেখ আব্দুল্লাহ আল ইয়াহিয়া, সাতক্ষীরা জেলার ডিস্ট্রিবিউটর শরিফ আহম্মেদ প্রমুখ। “নগদ” ফিনান্সিয়াল সার্ভিস ঢাকার ক্লাস্টার হেড সাইফুল আলম বলেন-নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্টে গিয়ে যে কেউ বিনা মূল্যে নগদ অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। নিজে নিজে অ্যাকাউন্ট খোলার পাশাপাশি জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে খুব সহজে একজন গ্রাহক নগদ উদ্যোক্তার কাছ থেকে বিনা মূল্যে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন।

#

কলারোয়ায় নগর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের শুভ উদ্বোধন

কে এম আনিছুর রহমান ::
সাতক্ষীরা কলারোয়া পৌরসদরের গুরুত্বপূর্ণ নগর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ে ছয় কোটি টাকা ব্যয়ে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়েছে। রোববার বেলা ১১টার দিকে কলারোয়া পৌরসভার পশুহাট মোড়ে ফলক উন্মোচন করে উন্নয়ন প্রকল্প কাজের আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করেন সংসদ এড.মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি। প্রধান অতিথি বলেন, কলারোয়া পৌরসভাকে ডিজিটাল বা আধুনিকায়ন করতে রাজনৈতিক ব্যক্তিদের একতাবদ্ধ হয়ে কলারোয়ার উন্নয়নের জন্য কাজ শুরু করতে হবে। পৌরসভার উন্নয়নের অগ্রগতির এ কাজ ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকবে। বিগত কোনো সরকার এ ধরনের উন্নয়নমূলক কোনো কাজ কলারোয়ায় করে নাই। আপনাদের ভোটে শেখ হাসিনা আবারও প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় তিনি দেশ ও দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে বাংলাদেশের উন্নয়নে এ ধরনের কর্মকান্ড হাতে নিয়েছেন। পর্যায়ক্রমে এ প্রকল্পের আওতায় কলারোয়া পৌরসভায় ৪০ কোটি টাকার বেশি উন্নয়নমূলক কাজ করা হবে। কলারোয়া পাবলিক ইনস্টিটিউটের সাধারণ সম্পাদক এড.শেখ কামাল রেজার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে পৌরসভার অডিটোরিয়ামের হলরুমে ভারপ্রাপ্ত মেয়র প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান বুলবুল প্রধান অতিথি এড.মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপিকে স্বর্ণের নৌকার ব্যাচ পরিয়ে দিয়ে সংবর্ধনা দেন।
এ সময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফিরোজ আহমেদ স্বপন, কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মুনির-উল-গীয়াস, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আসাদুজ্জামান সাহাজাদা, জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আমজাদ হোসেন। এর আগে পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান বুলবুল স্বাগত বক্তব্য দেন।
এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন-মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক কমান্ডার সৈয়দ আলী গাজী, জাসদের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, ওয়ার্কাস পাটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ, ইউপি চেয়ারম্যানদ্বয়, পৌর সচিব তুষার কান্তি দাস, ইঞ্জিনিয়ার ওয়াজিহুর রহমান, পৌর প্রশাসনিক কর্মকর্তা আরিফ হোসেন, পৌর বিদ্যুৎ প্রকৌশলী সরওয়ার্দ্দি, পৌরসভার হিসাব রক্ষক ইমরুল ইসলাম, কর আদায়কারী নাজমুল হোসেন, স্যানিটারী ইন্সেপেক্টর সুরেন্দ্র শেখর সাহা কাজল, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ফারহানা হোসেন, সন্ধ্যা রানী বর্মণ, লুৎফুন্নেছা লুতু, কাউন্সিলর মেজবাহ উদ্দীন লিলু, শেখ জামিল হোসেন, এসএম মফিজুল হক, রফিকুল ইসলাম, আকিমুদ্দিন আকি, আলফাজ উদ্দীন, জাহাঙ্গীর হোসেন, ওয়ার্ক এ্যাসিসটেন কার্য সহকারী ইমরান হোসেন, অফিস সহকারী মীর তৌহিদুর রহমানসহ সুধিজন।

#