কলারোয়া সংবাদ ॥ পৌরসদরের ১৫টি পরিবার বিদ্যুৎ বঞ্চিত


129 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়া সংবাদ ॥ পৌরসদরের ১৫টি পরিবার বিদ্যুৎ বঞ্চিত
মে ১৯, ২০১৯ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

নির্ধারিত ফি জমা দিয়েও মিলছে না খুটি

কে এম আনিছুর রহমান ::

বিদ্যুতের দুই খুটির (পিলার) মধ্যবর্তী স্থানে বসবাস করায় বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে বঞ্চিত সাতক্ষীরার কলারোয়া পৌরসদরের তুলশীডাঙ্গা ও উপজেলার লোহাকুড়া গ্রামের ১৫টি পরিবার। যদিও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কর্মকর্তাদের পরামর্শে নির্ধারিত ফি দিয়ে বিদ্যুতের খুটির (পিলার) জন্য আবেদন করা হয়। তবে আবেদনের প্রায় এক মাস অতিবাহিত হলেও বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ গ্রহন না নেওয়ায় ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে বিদ্যুৎ বঞ্চিত পরিবারগুলো।
কলারোয়া পৌরসদরের তুলশীডাঙ্গা এলাকার শহিদুল ইসলাম, সাজু, মতিয়ার লোহাকুড়া গ্রামের হাসান, মোশারফসহ অনেকে জানান, পৌরসদরের বাসিন্দা হয়েও তারা (১৫টি পরিবার) পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। বিষয়টি একাধিকবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জানানো হলেও তারা কোন ব্যবস্থা নিতে পারেনি। পরবর্তীতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পরামর্শে গত ২৪ এপ্রিল দুইটি সাব খুটির (পিলার) জন্য নির্ধারিত ফি দিয়ে স্থানীয়দের পক্ষে আবেদন করেন শহিদুল ইসলাম ও মোশারফ সরদার। তারা জানান, আবেদন করার এতদিন পরও সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কোন কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে আসেননি বরং ঝাউডাঙ্গা জোনাল অফিসের কর্মকর্তারা আবেদনের বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে তাদেরকে জানিয়েছেন। কলারোয়া পৌরসদরের বাসিন্দা হয়েও বিদ্যুৎ বঞ্চিত তুলশীডাঙ্গা এলাকার ৬টি ও লোহাকুড়া গ্রামের ৯টি পরিবার তাদের আবেদনকৃত বিদ্যুতের খুটি ও বিদ্যুৎ সংযোগের দাবি জানিয়ে বলেন, বর্তমান সরকার দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো পৌঁছে দিচ্ছে। অথচ পৌরসদরে বাসিন্দা হয়েও আমরা বিদ্যুতের সংযোগ পাচ্ছি না। বঞ্চিত এসব পরিবারের সদস্যরা বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে অবিলম্বে স্থানীয় (তালা-করারোয়া) সংসদ সদস্য, কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির উর্দ্ধতন কর্তপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
বিদ্যুতের খুটির (পিলার) আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির (কলারোয়া সাব জোনাল অফিস) এজিএম আবু বকর সিদ্দিকী জানান, আমরা আবেদন পত্র জোনাল অফিসের মাধ্যমে সমিতির প্রধান কার্যালয়ে (পাটকেলঘাটা) পাঠিয়ে দিয়েছি। পরবর্তী কাজ সেখান থেকে করবে।

#

কলারোয়ায় আম ব্যবসায়ীকে ১০হাজার টাকা জরিমানা
কে এম আনিছুর রহমান ::
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় অপরিপক্ক আম পাকিয়ে বিক্রয়ের অভিযোগে এক ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রামম্যাণ আদালত। রোববার বিকালে উপজেলার কেরালকাতা ইউনিয়নের বেলতলা আমের আড়তে এ জরিমানা করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আর এম সেলিম শাহনেওয়াজ ভ্রামম্যাণ আদালত পরিচালনা করেন। ভ্রামম্যাণ আদালত চলাকালে বেলতলার সজিব ট্রেডার্স এন্ড ফল ঘরে উপজেলার পূর্ব কোটা গ্রামের আ: হামিদের ছেলে আয়ুব আলী (৪৫) অপরিপক্ক ন্যাংড়া আম পাকিয়ে বিক্রয়ের সময় হাতে নাতে আটক হয়। এ সময় তাকে ভ্রামম্যাণ আদালত ১০হাজার টাকা জরিমানা করেন। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সহযোগিতা করেন-উপজেলার সিনিয়র কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মহাসীন আলী, কলারোয়া থানার পুলিশ অফিসার ও ইউএনওর বেঞ্চসহকারী এমএ মান্নান।

#

কলারোয়ায় রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী সমিতির ইফতার মাহফিল
কে এম আনিছুর রহমান ::
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী সমিতির সম্মানে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার তেহামি ভেলিফুডে এ ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। কলারোয়া রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শেখ শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী সমিতির উপদেষ্ঠা আজিজুল ইসলাম, জিয়াউর রহমান জিয়া, আনিছুর রহমান পলাশ, কামরুল ইসলাম সাজু, সাধারণ সম্পাদক আ: গফুর খোকন, সহ-সভাপতি শেখ শাহাদাত হোসেন, কলারোয়া বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী সমিতির সহ-সম্পাদক আলিমুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ইউনুচ আলী, কোষাধ্যক্ষ নাজমুল হোসেন, রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী সমিতির সদস্য কাছেদ আলী, আ: হামিদ, আশরাফ আলী, লুৎফর রহমান, জহুরুল ইসলামসহ সমিতির সকল সদস্যবৃন্দ। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন-কলারোয়া থানা মসজিদের ইমাম মাওলানা আসাদুজ্জামান ফারুকী।

#

কলারোয়ার ছলিমপুরের হাজী নাছির উদ্দীনের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন

কে এম আনিছুর রহমান ::
পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘কলারোয়া নিউজ’র অন্যতম উপদেষ্টা অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী তরু ইসলামের প্রয়াত পিতা কলারোয়া উপজেলার ছলিমপুর গ্রামের হাজী নাছির উদ্দীনের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে।
এ উপলক্ষ্যে রবিবার ছলিমপুর গ্রামের চারটি মসজিদে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। একই সাথে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে তরু ইসলামের বাসায় দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এসময় প্রয়াতের আত্মার মাগফিরাত ও বেহেশত কামনায় আল¬াহর দরবারে দোয়া করা হয়।
উল্লেখ্য, ছলিমপুরে বিশিষ্ট সমাজসেবক হাজী নাছিরউদ্দীন ৭বছর আগে এ দিনে মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর নামে ছলিমপুরে ‘হাজী নাছির উদ্দীন কলেজ’ প্রতিষ্ঠা করেন তারই বড়পুত্র বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এনাম হক। ওই কলেজের পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন এনাম হক ও তরু ইসলামের পিতা নাছির উদ্দীন।
কলারোয়া নিউজ’র উপদেষ্টা তরু ইসলাম জানান- ‘আজ আমার বাবার ৭ম মৃত্যবার্ষিকী। কলারোয়ার ছলিমপুরে আব্বার নামে হাজী নছির উদ্দীন কলেজ সংলগ্ন মসজিদের পাশে তিনি শায়িত। জানিনা অন্ধকার কবরে আব্বা কেমন আছেন!
আমাদের বাবার জন্যে সন্তানদের পক্ষ থেকে আল্লাহর কাছে দোয়া কামনা করি।’
প্রসঙ্গত, মাস কয়েক আগে দেশে এসে কলেজ প্রাঙ্গনে প্রয়াত পিতা হাজী নাছির উদ্দীনের কবর জিয়ারত করেন তরু ইসলাম। প্রয়াত হাজী নাছির উদ্দীনের সেঝ ছেলে তরু ইসলাম অস্ট্রেলিয়ায় প্রবাস জীবনযাপন করলেও মন ও নাড়ির টানে কলেজ ও এলাকার পাশে থাকার চেষ্টা করেন সবসময়। সুযোগ পেলে দেশে এসে কিংবা অস্ট্রেলিয়ায় থাকাকালীনও সর্বদা সংযোগ রাখেন এলাকায়।

#