কলারোয়া সংবাদ ॥ সংবাদের প্রকাশের পর সংস্কার হলো কলারোয়া বাজারের কাঠের ব্রিজটি


428 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়া সংবাদ ॥ সংবাদের প্রকাশের পর সংস্কার হলো কলারোয়া বাজারের কাঠের ব্রিজটি
সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া(সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি
পত্রিকায় সংবাদের প্রকাশের পর সংস্কার করা হলো সাতক্ষীরার কলারোয়া মাছ বাজারের কাঠের ব্রিজটি।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়- কিছুদিন আগে বেত্রবতী নদীর উপরে কাঠের ব্রিজটি বৃষ্টিততে জরাজীর্ণ হয়ে ভেঙ্গে পড়ে। ফলে কলারোয়া বাজারের সাথে মুরারীকাটি, কয়লা, শ্রীপতিপুরসহ ওই অঞ্চলের হাজারো মানুষের প্রতিদিনের যাতায়াত বাধাগ্রস্থ হয়। এ বিষয়ে ব্রিজটি সংষ্কারের দাবিতে সম্প্রতি সংবাদ প্রকাশের পর কলারোয়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইমাদুল ইসলামের নেতৃত্বে মুরারীকাটি এলাকাবাসী এগিয়ে আসে ব্রিজটি সংস্কারে। তাদের অর্থায়ন ও সহযোগিতায় সংস্কার করা হয় কাঠের ব্রিজটি। এমনটাই জানালেন মুরারীকাটি টালী কারখানার মালিক গোষ্ট গোপাল। জানা গেছে- এলাকাবাসির প্রচেষ্টা ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইমাদুল ইসলামের সার্বিক সহযোগিতায় নতুন ভাবে বাঁশ ও কাঠের তক্তা দিয়ে ব্রিজটি সংষ্কার করা হয়েছে। তবে কাঠের ব্রিজটি পাকাকরণ করা সময়ের দাবি।
###

কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া(সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল (অনুর্ধ ১৭) টুর্নামেন্টের দু’টি সেমিফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে ও বিকেলে ম্যাচ দু’টি সরকারি জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুল ফুটবল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। সকালে প্রথম সেমিফাইনালে কয়লা ইউনিয়ন ফুটবল একাদশ ৩-১ গোলে কেরালকাতা ইউনিয়ন একাদশকে পরাজিত করে ফাইনাল নিশ্চিত করে। প্রথমার্ধের ৪ মিনিটে কয়লার ১৩ নং জার্সিধারী খেলোয়াড় জুয়েল প্রথম গোল করে দলকে এগিয়ে নেন। দ্বিতীয়ার্ধের আগমুহুর্তে কয়লার ১০নং জার্সিধারী খেলোয়ার হাসিবুল ১টি গোল করেন। বিরতির পর কেরালকাতা ১টি গোল পরিশোধ করে। খেলার শেষ মুহুর্তে কয়লার ৩নং জার্সিধারী খেলোয়ার সোহেল ১টি গোল করে দলকে ৩-১ গোলে জিতিয়ে নেন। বিকেলে দ্বিতীয় সেমিতে টাইব্রেকারে কলারোয়া পৌরসভা ৪-২ গোলে দেয়াড়া ইউনিয়নকে পরাজিত করে ফাইনালে উঠেছে। খেলার প্রথমার্ধে গোলশুন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধে উভয় দল ১টি করে গোল করে। পরে টাইব্রেকারে কলারোয়া ৪-২ গোলে দেয়াড়াকে পরাজিত করে। খেলা দু’টির রেফারির দায়িত্ব পালন করেন মাসউদ পারভেজ মিলন। সহকারী রেফারি ছিলেন রাশেদুজ্জামান রাশেদ, আবু সাঈদ, আনোয়ার হোসেন ও মোস্তাফিজুর রহমান। ধারাভাষ্যে ছিলেন অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, মাস্টার শেখ শাহাজাহান আলী শাহীন ও রুস্তম আলী। উভয় খেলায় বিপুল সংখ্যক দর্শক সমাগম ছিলো লক্ষণীয়। আর মঞ্চে বসে খেলা উপভোগ করেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এইচএম আরাফাত হোসেন, পৌরসভার প্যানেল মেয়র মনিরুজ্জামান বুলবুল, কয়লা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ইমরান হোসেন, কেরালকাতা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল হামিদ, দেয়াড়া ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান মফে, পাবলিক ইন্সটিটিউটের সাধারণ সম্পাদক এড.শেখ কামাল রেজা, ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান খান চৌধুরী, ক্রীড়া সংগঠক রেজাউল করিম লাভলু, প্রধান শিক্ষক বদরুজ্জামান বিপ্লব প্রমুখ। উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার বাস্তবায়নে টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা রোববার বিকেলে একই মাঠে কলারোয়া ও কয়লা মুখোমুখি হবে।
###

কলারোয়ায় আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস পালিত
কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার সকালে দিবসটি উপলক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসন ও প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের আয়োজনে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আকবর আলির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এএইচএম আরাফাত হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার বাবলু রহমান, আশিকুজ্জামান রানা ও রবিশংকর দেওয়ান।
উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার শোভা রায়ের পরিচালনায় এ সময় আরো উপস্থিত কলারোয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুজিবুর রহমান, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও শ্রীপতিপুর মডেল স্কুলের প্রধান শিক্ষক শেখ নুরুল্লাহ, নাকিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক পারুল আখতার, তুলশিডাঙ্গা স্কুলের রেহেনা সুলতানাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। দেশে বর্তমান সাক্ষরতার হার ৭২ দশমিক ৯ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। গতবার এই হার ছিল ৭২ দশমিক ৩ শতাংশ।
###

 

কলারোয়ায় সাবেক এমপি হাবিবসহ ২০ জনের নামে মামলা
কে এম আনিছুর রহমান,কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ও সাতক্ষীরা জেলার সাবেক সভাপতি, সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিবসহ ২০জনের নামে কলারোয়া থানায় নাশকতা মামলা হয়েছে। এ মামলায় আটক করা হয়েছে ৪জন বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মীকে। আর অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে ২০/২৫ জনকে।
শনিবার কলারোয়া থানার এসআই বিপ্লব রায় বাদি হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। যার মামলা নং-৮/২৯২।
আটককৃতরা হলো- উপজেলার শ্রীপতিপুর গ্রামের মৃত খোদাবক্সের ছেলে লুৎফর রহমান (৩৮), মোহাম্মদ আলীর ছেলে আলমগীর হোসেন (৩২) ব্রজবাকসা গ্রামের মৃত ফটিক সরদারের ছেলে আবু জাফর (৫৫) ও পাকুড়িয়া গ্রামের মৃত বজলুর রহমানের ছেলে মতিয়ার রহমান (৪৫)।
কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মারুফ আহম্মদ জানান,শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন যে, উপজেলার ব্রজবাকসার খলশি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বারান্দায় জামায়াত-বিএনপির নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ খবরের ভিত্তিতে তাঁর নেতৃত্বে থানার এসআই বিপ্লব রায়সহ পুলিশের একটি টিম সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৪জনকে আটক করে। অন্যরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। এ ছাড়া পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাঁশের লাঠি, লোহার জালের কাঠি, কাচের টুকরা, জর্দার কৌটা, সাইকেলের বিয়ারিং বল, আংশিক জ্বালানো টায়ার, লাল কসটেপ উদ্ধার করা হয়।
ওসি আরো জানান- নাশকতা পরিকল্পনাকারীসহ আসামিদের আটকের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
এদিকে, একই রাতে পৃথক অভিযানে ২২ বোতল ফেনসিডিলসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- উপজেলার রাজপুর গ্রামের আব্দুস সালামের পুত্র ইমন মোল্ল্যা (১৯)ও লাঙ্গলঝাড়া গ্রামের রেজাউল ইসলামের পুত্র সবুজ (৩০)। তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে।