কলারোয়া সংবাদ : কলারোয়ায় হিন্দু,বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের বিক্ষোভ


351 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়া সংবাদ : কলারোয়ায় হিন্দু,বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের  বিক্ষোভ
নভেম্বর ৪, ২০১৬ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান :
ব্রাক্ষনবাড়িয়ার নাসির নগরে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর হামলা, প্রতিমা ও মন্দির ভাংচুরের প্রতিবাদে কলারোয়া উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে এক  বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩ টায়  কলারোয়া পৌর সদরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা হিন্দু,বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বাবু সিদ্ধেশ্বর চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক স্বপন শীল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ পাইন, জেলা পূজা উদযাপন কমিটির যুগ্ম সাধারণ

সম্পাদক নিত্যানন্দ আমিন, উপজেলা পূজা উৎযাপন কমিটির সভাপতি মনোরঞ্জন সাহা, কলারোয়া দক্ষিণ পাড়া কালি মন্দিরের সভাপতি নিখিল অধিকারী, প্রশান্ত মন্ডল, প্রদীপ পাল, দিলিপ অধিকারী,রামলাল দত্ত, জয়দাস, প্রমুখ।

সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সন্দ্বীপ রায়।
##

কলারোয়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৩

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় পুকুরে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় একই পরিবারের ৩ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ইলিশপুর গ্রামে।এ ঘটনায় কলারোয়া থানায় একটি মামলা হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, উপজেলার ওই গ্রামের মৃত করিম বকসের ছেলে রফিকুল ইসলামের সাথে একই গ্রামের আবু বকরের ছেলে জাহাঙ্গীর ও আলমগীরের সামাজিকভাবে মনমালিন্য চলে আসছে।

গত ১নভেম্বর গভীর রাতে রফিকুলের পুকুর থেকে তারা মাছ চুরি করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় রফিকুল প্রতিবাদ করলে প্রতিপক্ষ জাহাঙ্গীর, আলমগীর ও একই গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে চঞ্চল সংঘবদ্ধ হয়ে রফিকুল ইসলামকে মারপিট করে আহত করে।

এ সময় রফিকুলের মা অভিরোন নেছা ও স্ত্রী রাবিয়া খাতুন রফিকুল ইসলামকে উদ্ধার করার চেষ্টা করলে, তাদেরকেও মারপিট করে আহত করে।

এ ব্যাপারে গত বৃহস্পতিবার রাতে কলারোয়া থানায় একটি মামলা (নং-৮,তারিখ-৩/১১/১৬ ইং) হয়েছে বলে থানার অফিসার ইনচার্জ এমদাদুল হক শেখ জানিয়েছেন।
##

কলারোয়া সীমান্তে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে  দুই বাংলাদেশীকে ফেরত দিলো বিএসএফ

কলারোয়া সীমান্তের বিপরীতে ভারতের তারালী বিএসএফ ক্যাম্পে আটক দুই বাংলাদেশীকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ।
শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার কেঁড়াগাছি সীমন্তের মেইন পিলার ১৩/৩ এস এর ৩ আরবি’র নিকট পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাদেরকে হস্তান্তর করা হয়।

হস্তান্তরকৃতরা হলো- যশোরের অভয়নগর থানার ধুল গ্রামের মৃত আবুল শেখের ছেলে মোহাম্মদ আলী (৫০) ও খুলনা আটরা শেখপাড়া গ্রামের মৃত নুর ইসলামের ছেলে শাহ আলম (১৮)।
##

কাকডাঙ্গা বিওপি’র হাবিলদার আমিরুল ইসলাম জানান, গত কয়েকদিন পূর্বে উক্ত ব্যক্তিরা কলারোয়া সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করে তারালী বিএসএফ ক্যাম্প এলাকায় ঘোরাফেরা করছিল।

এ সময় ওই ক্যাম্পের টহলরত বিএসএফ সদস্যরা তাদেরকে আটক করে বাংলাদেশের কলারোয়া  উপজেলার কাকডাঙ্গা বিওপিতে পত্র প্রেরন করেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই সীমান্তে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফ আটককৃতদের  হস্তান্তর করেন। পরে তাদেরকে থানা পুলিশে সোর্পদ করা হয়।

এ ব্যাপারে কলারোয়া থানায় একটি পাসপোর্ট আইনে মামলা হয়েছে বলে  থানার অফিসার ইনচার্জ এমদাদুল হক শেখ জানান।
##

কলারোয়া সীমান্তে নারী-পুরুষসহ দুই ব্যক্তি আটক

সাতক্ষীরার কলারোয়া সীমান্তে অবৈধভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করার অপরাধে নারী-পুরুষসহ দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে বিএসএফ।

শুক্রবার বেলা ৩টার দিকে উপজেলার সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নের মেইন পিলার ১৩/৩ এস এর ৯ আরবি’র নিকট থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলো- নড়াইল জেলার কালিয়া থানার বাহিরডাঙ্গা গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে খায়রুল ইসলাম (২৩) ও একই থানার বিল বাউচ গ্রামের শিপন শিকদারের স্ত্রী রেহেনা খাতুন (৩০)।

মাদরা বিওপি’র ল্যান্সনায়েক ফকরুল ইসলাম জানান, শুক্রবার  তার নেতৃত্বে সীমান্তে টহলকালে ভারত থেকে ওই দুই ব্যক্তি সোনাই নদী পার হয়ে উত্তর ভাদিয়ালী সীমান্তে প্রবেশ করলে তাদেরকে আটক করা হয়।

পরে তারা বৈধ কোন কাগজ পত্র দেখাতে না পারায় তাদেরকে কলারোয়া থানায় সোর্পদ করে। এ ব্যাপারে কলারোয়া থানায় একটি মামলা হয়েছে।

##