কলারোয়া-সরসকাটি সড়কের বেহাল দশা : ১০ বছরেও সংস্কার না হওয়ায় জনদূর্ভোগ


668 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলারোয়া-সরসকাটি সড়কের বেহাল দশা : ১০ বছরেও সংস্কার না হওয়ায় জনদূর্ভোগ
এপ্রিল ২৫, ২০১৬ কলারোয়া ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কে এম আনিছুর রহমান, কলারোয়া :
সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার জনগুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ পাকা সড়কগুলোর মধ্যে কলারোয়া-টু-সরসকাটি সড়কটির বেহাল দশা চরমে। দেখার যেন কেউ নেই। কলারোয়া বাজার থেকে বেত্রবতী নদী পার হয়ে  বামনখালী বাজার হয়ে সরসকাটি বাজার পর্যন্ত মোট ৯ কিলোমিটার রাস্তা দীর্ঘ ১০ বছর কোন সংস্কার না হওয়ায় ভেঙ্গে চুরে নষ্ট হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। রাস্তাটি কাপেটিং-এর পাকা রাস্তা হলেও পিচের নমুনা ৯ কিলোমিটরের মধ্যে প্রায় ৮ কিলোমিটার নেই। রাস্তাটির অধিকাংশ জায়গা খানা খন্দকে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন দুই একটি নছিমন,এজিবাইক ও ভ্যান ভেঙ্গে অকেজো হয়ে পড়ে থাকে। আর ছোটখাটো সড়ক দূর্ঘটনা যেন নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার। তাই রাস্তাটি সংস্কার করা অত্যন্ত জরুরী ও সময়ের দাবি।
বেহাল দশা জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি এখনই সংস্কার করা না হলে আগামী বর্ষা মৌসুমের আগেই চলাচলের অনুপযোগি তো বটে, আর বর্ষা মৌসুম তো আছেই। এদিকে কপোতাক্ষ নদের উপর সরসকাটি ব্রীজ হওয়ায় সড়কটি যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার সাথে সংযুক্ত হয়। বিধায় দুই উপজেলার প্রায় ১০ থেকে ১২ লক্ষ মানুষের কলারোয়া ও কেশবপুর যাওয়ার একমাত্র উপায় হলো এই সড়কটি। এছাড়া এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিনি শত শত ট্রাক,মাইক্রোবাস,নছিমন,করিমন,ভাড়াই মোটরসাইকেলে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে।

kalaroa pic-24
এমনকি কলারোয়া থেকে সরসকাটি পর্যন্ত রাস্তাটির দু’পাশে দুটি কলেজসহ কয়েকটি হাইস্কুল ও প্রাইমালী স্কুল প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় কয়েক’শ শিক্ষকসহ হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী চলাচলে প্রতিনিয়তই ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। অল্প সময়ের পথ পাড়ি দিতে কয়েক ঘন্টা সময় লাগে তাছাড়া ভাড়াও দ্বিগুন। সংস্কারের অভাবে বর্তমানে যান চলাচল হুমকির মুখে। তাই সড়কটি সংস্কার করা ওই এলাকায় বসবাসকারী মানুষসহ বিভিন্নœ এলাকার মানুষের গণদাবিতে পরিণত হয়েছে। একান্ত বাধ্য হয়ে যাতায়াত করলেও তাদের ভোগান্তি যেন শেষ নেই। রাস্তাটি এখন যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে।
সরেজমিনে গিয়ে আরো দেখা যায, কলারোয়া-টু-সরসকাটি সড়কে কলারোয়া পৌর সদরের বেত্রবতী নদী পার হয়ে কলাগাছি মোড় হয়ে জালালাবাদ মোড় পর্যন্ত,হামিদপুর মোড় এলাকা, ভাই ভাই ভাটা থেকে বামনখালী বাজার হয়ে বৈদ্যপুর মোড় পর্যন্ত এবং ওফাপুর মোড় থেকে সরসকাটি বাজারের ব্রীজের মাথা পর্যন্ত সড়কে ,খানা-খন্দক, গর্ত,ভাঙ্গল এত বেশী পরিমান যে, যান চলাচল তো দুরের কথা হাঁটা চলাচলও ভীষন ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।
এলাকাবাসি জানান,এই সড়কটি কমপক্ষে ১০ বছর সংস্কার হয়নি। দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় ধ্বংসের দারপ্রান্তে উপণীত। ব্যস্ততম এই সড়কটি দিয়ে চলাচল করতে তাদেরসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষের ভীষণ কষ্ট উপভোগ করতে হয়। ফলে জরুরী ভিত্তিতে যাতে রাস্তাটি সংস্কার করা হয় তার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষসহ স্থানীয় এমপি এ্যাড.মুস্তফা লুৎফুল্লাহ’র সু-দৃষ্টি কামনা করেন।
কলারোয়া উপজেলা প্রকৌশলী আবেদুর রহমান জানান,কলারোয়া-টু-সরসকাটি সড়কটি সড়ক বিভাগের আওয়াতাধীন থাকায় সড়কটি সংস্কারের বিষয়টি এলজিইডির আওতায় আসে না। বিধায় সংস্কার করতে পারছেন না বা সংস্কারের বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না । তবে কলারোয়ার জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি যাতে জরুরী ভিত্তিতে সংস্কার করা হয় এমনটি আশা ভুক্তভোগী জনগনের সাথে তিনিও করেন।