কাজী জাফর আহমেদের চেহলাম অনুষ্ঠিত


506 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কাজী জাফর আহমেদের চেহলাম অনুষ্ঠিত
অক্টোবর ১৬, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

খুলনা প্রতিনিধি :
সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমেদের রুহের মাগফিরাত কামনায় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বাদ জুম্মা খুলনা মহানগরী ইসলামপুর রোডস্থ কাজী জাফর আহমেদের পৈত্রিক নিবাস কাজী বাড়িতে এ আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন খুলনা জেলা ইমাম পরিষদের সভাপতি মাওলানা মোহাম্মদ সালেহ।

খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা সাখাওয়াত হুসাইনের পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে বক্তব্য ও উপস্থিত ছিলেন, জাপা (জাফর) কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী মোস্তফা জামাল হায়দার, অধ্যক্ষ কাজী ফারুক আহমেদ, মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি, নজরুল ইসলাম মঞ্জু, জেলা সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এসএম শফিকুল আলম মনা, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, অধ্যক্ষ তরিকুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম মেঝো ভাই, মহানগর জাপা (এরশাদ) সভাপতি সাবেক এমপি আলহাজ্ব আবুল হোসেন, মহানগরী জেপির সভাপতি লতিফুর রহমান লাবু, সাধারণ সম্পাদক সিরাজউদ্দিন সেন্টু, পিপলস লীগের সভাপতি ডাঃ সৈয়দ আফতাব হোসেন, জাগপার সভাপতি সালাউদ্দিন মিঠু, খেলাফত মজলিসের সভাপতি মাওলানা গোলাম কিবরিয়া, মাওলানা আলী আহমদ, রূপসা উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল্লাহ জুবায়ের, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য শেখ দিদারুল আলম, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুনির উদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ কাজী শামীম আহমেদ, দৈনিক মানবজমিনের ব্যুরো প্রধান রাশিদুল ইসলাম, দৈনিক সংগ্রামের ব্যুরো প্রধান আব্দুর রাজ্জাক রানা, দৈনিক প্রবাহের সিনিয়র রিপোর্টার মুহাম্মদ নূরুজ্জামান, দৈনিক আলোকিত সংবাদের স্টাফ রিপোর্টার এমএ জলিল, কেসিরি কাউন্সিলর শমসের আলী মিন্টু ও কেএম হুমায়ুন কবীর, খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির যুগ্ম সম্পাদক তৌহিদুর রহমান তুষার, এডভোকেট হাফিজুর রহমান, বিএনপি নেতা এডভোকেট গোলাম মাওলা, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, শেখ মোশাররফ হোসেন, শামসুজ্জামান চঞ্চল, শেখ আব্দুর রশিদ, ইউসুফ হারুন মজনু, মুজিবর রহমান, মহানগর যুবদল সাধারণ সম্পাদক শের আলম সান্টু, মনিরুজ্জামান মন্টু, সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আজিজুল হাসান দুলু, মহানগরী ছাত্রদল সভাপতি আরিফুজ্জামান আরিফ, সাধারণ সম্পাদক এসএম কামাল, মাওলানা নাসির উদ্দিন, জাপা (জাফর) নেতা মোস্তফা কামাল, আবু সাঈদ, আব্দুর রহমান, হাজী আব্দুল কাদের, মরহুমের ভাই কাজী জয়নাল আহমেদ, কাজী মুনসুর আহমেদ, কাজী মামুন আগমেদ প্রমুখ। এছাড়া বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ নগরীর বিশিষ্ট গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কাজী জাফর আহমেদ ছিলেন আপদ রাজনীতিবিদ। স্কুল জীবন থেকেই অন্যায়-অত্যাচার, নির্যাতন ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন। শ্রমিক অঙ্গনে তাঁর মতো বড় মাপের মানুষ আর তৈরী হবে কিনা তা সন্দেহ রয়েছে। শ্রমিকদের দাবি আদায়ের ক্ষেত্রে আমলা ও মালিকদের আতংক ছিলেন তিনি। তাঁর মৃত্যুর পরে ঢাকার টঙ্গিতে তার জানাযায় শ্রমিকদের স্বতঃস্ফুর্ত অংশ গ্রহণেই স্বাক্ষর রাখে।
বক্তারা আরো বলেন, তিনি রাজনৈতিক অঙ্গনে ভারতীয় সাম্যরাজ্যবাদের বিরুদ্ধে ছিলেন সোচ্চার। মৃত্যুর আগপর্যন্ত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য জাতীয়তাবাদী ও ইসলামী মূল্যবোধের শক্তিকে এক প্লাট ফর্মে আনার চেষ্ঠা চালিয়ে গেছেন।

বক্তারা বলেন, সাংবাদিক বান্ধব কাজী জাফর আহমেদের আন্তরিকতার ফসলই হলো খুলনা প্রেসক্লাব। তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকাবস্থায় প্রেসক্লাবের জায়গা দান ও অর্থ প্রদান করে যা খুলনার সাংবাদিকরা এখনও স্মরণ করে।
বক্তারা আরো বলেন, আজ সারাদেশে যখন গণতন্ত্র নির্বাষিত, মানুষের বাক স্বাধিনতা নেই ঠিক এই মুহুর্তে কাজী জাফর আহমেদের মতো সাচ্চা জাতীয়তাবাদ ও সাহসী নেতার খুবই প্রয়োজন ছিল। বক্তারা গণতন্ত্র পুনঃ উদ্ধারের জন্য সকল দলমতের উর্দ্ধে উঠে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান।