কালিগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধা ও ক্রীড়া সংগঠক শিক্ষক আব্দুল বারেক আর নেই


401 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালিগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধা ও ক্রীড়া সংগঠক শিক্ষক আব্দুল বারেক আর নেই
জুলাই ২১, ২০১৫ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সুকুমার দাশ বাচ্চু, কালিগঞ্জ :
কালিগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক, কালিগঞ্জ পাইলট হাই স্কুলের অবসরপ্রাপ্ত ক্রীড়া শিক্ষক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারেক আর নেই। তিনি মঙ্গলবার কালিগঞ্জ শীতলপুর বাড়ী থেকে এ্যামবুলেন্স যোগে ঢাকায় যাওয়ার পথে আনুমানিক রাত ৮ টার সময় ইন্তেকাল করেন। (ইন্না লিল্লাহে………. রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হইছিল ৭০ বছর। তিনি দীর্ঘদিন কিডনি রোগে ভুগছিলেন। তিনি এক পুত্র এক কন্যা স্ত্রী সহ আত্মীয় স্বজন গোনাগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন গত ১৬ জুলাই ঈদের আগে  গ্রামের বাড়ীতে ঈদ করতে ও পরিবারের সকলের সাথে দেখা করতে আসেন। ঈদের ২ দিন পর মঙ্গলবার ২১ শে জুলাই বাড়ী থেকে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে পরিবারের মধ্যে শোকের ছায় নেমে আসে। কালিগঞ্জ উপজেলার শীতলপুর গ্রামের মৃত কিনু সরদারের পুত্র আব্দুল বারেক ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। কালিগঞ্জ পাইলট স্কুলের ক্রীড়া শিক্ষক হিসাবে থাকার পর অবসর গ্রহণ করে। দীর্ঘ ৩৫ বছর যাবত কালিগঞ্জ উপজেলার ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৫ বছর সাতক্ষীরা জেলা ক্রীড়া সংস্থা কার্যকরী কমিটির সদস্য ছিলেন। এছাড়া তিনি কালিগঞ্জ রোকেয়া মনসুর মহিলা কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ও শীতলপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ছিলেন। মুক্তিযোদ্ধা ও ক্রীড়া সংগঠক শিক্ষক মোঃ আব্দুল বারেক এর মৃত্যুতে কালিগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে গভীর শোকের ছায়া নেমে আসে। মুক্তিযোদ্ধা  ও ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারেক এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমাবেদনা জানিয়েছে কালিগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ ওয়াহেদুজ্জামান। কালিগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ন সম্পাদক সুকুমার দাশ বাচ্চু, যুগ্ন সম্পাদক ও ফিফা রেফারী শেখ ইকবাল আলম বাবলু, নির্বাহী সদস্য শেখ সাইফুল বারী সফু, সৈয়দ মোমিনুর রহমান, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি শেখ আনোয়ার হোসেন, শেখ হোসেন আহম্মেদ গোলাম, রবিউল ইসলাম ছট্টু প্রমুখ।