কালিগঞ্জে অধ্যাপক আব্দুল খালেকের জানাজায় হাজারও মানুষ


498 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালিগঞ্জে অধ্যাপক আব্দুল খালেকের জানাজায় হাজারও মানুষ
মার্চ ৬, ২০২০ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সুকুমার দাশ বাচ্চু কালিগঞ্জ(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি :
হাজার হাজার মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হয়ে জানাজার নামাজ শেষে পিতার কবরের পাশে শায়িত হলেন কালিগঞ্জের সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যাক্তিত্ব অধ্যাপক আব্দুল খালেক। কালিগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক, উপজেলা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক, ভাড়াশিমলা ইউপি সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা ভূমি কমিটির সভাপতি, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত অধ্যাপক আব্দুল খালেক এর জানাজার নামাজ গতকাল শুক্রবার জুম্মাবাদ কালিগঞ্জ শহীদ সামাদ স্মৃতি ফুটবল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার নামাজের পূর্বে কালিগঞ্জ বাস মিনিবাস মালিক সমিতির আঞ্চালিক কর্মকর্তা আলহাজ¦ আজিজ আহমেদ পুটুর সঞ্চালনায় মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে স্মৃতি চারন করে বক্তব্য রাখেন সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ¦ শাহাদাৎ হোসেন, সাতক্ষীরা পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি, কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়িার সহ-সভাপতি সাঈদ মেহেদী, উপজেলা ভাইস চেয়ারমান নাজমুল ইসলাম, সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আহবায়ক এ্যাডঃ সৈয়েদ ইফতেখার আলী, কালিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও তারালী ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হোসেন ছোট, কালিগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাডঃ আব্দুস সাত্তার, শ্যামনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাস্টার আব্দুল ওয়হেদ, দেবহাটা বিএনপির সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ, কালিগঞ্জ সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ জিএম রফিকুল ইসলাম, মরহুমের নিকটতম বন্ধু এ্যাডঃ আমজাদ হোসেন, বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ি আব্দুল গফুর, ডাঃ মোক্তার হোসেন, সাতক্ষীরা পৌর বিএনপির সভাপতি হাবিবুর রহমান হবি, কালিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাস্টার নরিম আলী মুন্সি, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মাহাবুবুর রহমান, মরহুমের ছোট ভাই আব্দুল হান্নান। বক্তারা বলেন অধ্যাপক আব্দুল খালেক সৎ, ন্যায় পরায়নতা ছিলেন। তিনি একাধারে কলেজের শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতা হিসাবে তার নেতৃত্ব সকলের কাছে গ্রহন যোগ্য ছিলন। তিনি যে কোন অন্যায়ের প্রতিবাদী সাহসী ব্যাক্তি ছিলেন। তার মৃত্যুতে কালিগঞ্জ বাসি একজন ভাল মানুষকে হারালো। অধ্যাপক আব্দুল খালেকের নামে স্মৃতি সংসদ গঠন ও তার ২ কন্যার জন্য তার স্ত্রীর হাতে বড় অংকের অর্থিক সহায়তা দেওয়ার কথা বলেন। জানাজার নামাজে আরো উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, তার কলেজের সহকর্মীবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিকবৃন্দ, উপজেলা ভূমি কমিটির নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের ব্যক্তিবর্গ, মরহুমের আতœীয় স্বজনসহ প্রায় অর্ধলক্ষ মুসল্লি জানাজার নামাজে অংশ গ্রহন করেন। জানাজার নামাজ পড়ান মরহুম আব্দুল খালেকের ছোট ভাই আলহাজ¦ আব্দুল গফ্ফার। ১ মার্চ রবিবার বিকেল ৫টায় দিকে সাতক্ষীরা-কালিগঞ্জ সড়কের কুকোডাঙ্গা মোড়ে মটর সাইকেল দূর্ঘটনায় মারাত্বক আহত হলে প্রথমে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, নলতা হাসপাতাল ও পরে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকদের পরামর্শে সন্ধ্যায় খুলনার সিটি মেডিকেল হাসপাতালে নিবিড় পর্যাবেক্ষনে আইসিইউতে রাখা হয়। অধ্যাপক আব্দুল খালেকের দূর্ঘটনার পর থেকে বিভিন্ন সাংবাদ মাধ্যম সর্বক্ষনিক তার খোজ খবর নিতে থাকেন। ২ মার্চ অধ্যাপক আব্দুল খালেক আইসিইউতে থাকা অবস্থায় চিকিৎসকরা তার লাইফ সার্পোট খুলে নিলে ঐ দিন সন্ধায় তিনি মারা গেছেন বলেন পরিবারের সদস্য জানান। তাদের তথ্যমতে বিভিন্ন মিডিয়া ও ফেসবুকে তিনি মারা গেছেন বলে প্রচার হয়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে আতœীয় স্বজনরা জানায় অধ্যাপক আব্দুল খালেক মারা যাননি। চিকিৎসকদের ভুল সিদ্ধান্তের কারনে মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশিত হয়। পরে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৫ মার্চ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২টায় দূর্ঘটনার ৪ দিন পর তিনি মারা যান। জানাজা নামাজ শেষে কালিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম নারায়নপুর গ্রামে পিতা আবুল কাশেম এর কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।