কালিগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান ও তার কন্যার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সমাবেশ


116 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালিগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান ও তার কন্যার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সমাবেশ
জানুয়ারি ১২, ২০২০ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সুকুমার দাশ বাচ্চু, কালিগঞ্জ ::

কালিগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আকলিমা খাতুন লাকি ও তার কন্যা সাফিয়া পারভীন এর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রেরর প্রতিবাদে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদ চত্তরে রবিবার ( ১২ জানুয়ারী) বিকাল ৪ টায় কৃষ্ণনগর ইউপি’র প্যানেল চেয়ারম্যান ও ৯ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য জি এম নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সমাজসেবক এস এম মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন কৃষ্ণনগর ইউপি চেয়ারম্যান আকলিমা খাতুন লাকি, জাতীয় মহিলা পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যা ও প্রায়ত ইউপি চেয়ারম্যান কে এম মোশাররফ হোসেনের কন্যা জনপ্রিয় নেত্রী সাফিয়া পারভীন। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন ইউপি সদস্য, আফসার উদ্দিন, জি এম জবেদ আলী, এম সাইফুর রহমান বাবু, শহীদ কে এম মোশারাফ হোসেনের ভাতিজা আনিছুর রহমান, বিশিষ্ট ওয়াজীয়ান মাও: আয়ুব হোসেন শংকরপুরী, মহিলা ইউপি সদস্য রাশিদা বেগম, সদস্যা ফরিদা পারভীন। প্রতিবাদ সমাবেশে উপস্থিত সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কালিগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি শেখ আনোয়ার হোসেন। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান কে এম মোশাররফ হোসেনকে কু-চক্রি মহলের ইন্ধনে নিঃসংস ভাবে হত্যা করে। পরবর্তীতে ইউপির উপ নির্বাচনে জনগনের ভোটে তারই স্ত্রী আকলিমা খাতুন লাকি বিপুল ভোটে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়। নির্বাচনের পর থেকে জনগনকে সহায়তার জন্য সরলমনা মায়ের পাশে থেকে বিভিন্ন সহযোগীতা করে থাকে চেয়ারম্যান কন্যা, এলাকাবাসীর অত্যন্ত প্রিয় নেত্রী সাফিয়া পারভীন।কিন্তু এলাকার কতিপয় কুচক্রি ব্যক্তি ও ইউনিয়ন ররাজনীতিতে বরাবরই প্রতিপক্ষ ব্যক্তিরা চেয়ারম্যান আকলিমা খাতুন লাকি ও তার কন্যা সাফিয়া পারভীনকে সামাজিক ভাবে হেও প্রতিপন্ন করার লক্ষে এবং তাদের দীর্ঘদিনের অর্জিত সন্মান ক্ষুন্ন করতে সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তিকর বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করায় উপস্থিত প্রতিবাদ সামবেশে সকলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। প্রতিবাদ সমাবেশে সাফিয়া পারভীন বলেন, আমার এলাকার উন্নয়নের জন্য এবং মানুষের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে ন্যায় এবং সত্য কাজের জন্য প্রশাসনের কাছে আমি সহযোগীতা চাইলে তারা আমাদের সহযোগিতা করেন। আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের কোন মেম্বর সাহেবকে পিতার হত্যা মামলার চার্জসিট এর ভয় দেখিয়ে কোন কাজ করা হয়নি। এটা নিছক বানোয়াট একটি প্রপাগান্ডা। তিনি আরো বলেন সংবাদে আমাকে তালাক প্রাপ্ত বলে যে মিথ্যাচার করে প্রকাশ করিয়েছে তার প্রমান দিতে হবে। এ জন্য সম্পাদক মন্ডলীর দৃষ্টি আকর্ষন করছি। আমি একজন সাধারন নাগরিক এবং জাতীয় মহিলা পার্টির কেন্দ্রীয় নেত্রী হিসাবে এলাকার সাধারন মানুষের পাশে গিয়ে তাদের সমস্যা ও বিপদে পাশে থেকে ইউনিয়নে আমার পিতার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য সকলের সহযোগীতা কামনা করছি।