কালিগঞ্জে রোগাক্রান্তদ গরু জবাই করার অভিযোগে স্থানীয় জনতার বাধায় কাকশিয়ালি নদীতে ফেলে দিয়েছে।


588 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালিগঞ্জে রোগাক্রান্তদ গরু জবাই করার অভিযোগে স্থানীয় জনতার বাধায় কাকশিয়ালি নদীতে ফেলে দিয়েছে।
জুলাই ২৪, ২০১৫ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সুকুমার দাশ বাচ্চু, কালিগঞ্জ :
কালিগঞ্জ ফুলতলা মোড়ে কসাই আব্দুস সাত্তারের মাংসের দোকানে আজ শুক্রবার ভোরে ঘরের মধ্যে কুকুরে কামরানো রোগগ্রস্থ গরু জবাই করার অভিযোগে স্থানীয় জন সাধারন মাংস বিক্রয়ে বাধা দিলে এক পর্যায়ে কসাই আব্দুস সাত্তার রোগ আক্রান্ত গরু কাঁকশিয়ালি নদীতে ফেলে দেয়। কালিগঞ্জ উপজেলার মৃত কিনু গাজীর পুত্র আব্দুস সাত্তার কসাই স্থানীয়দের জানায়, আমি আব্দুর রব নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে গরুটি ক্রয় করেছি, গরুটি কুকুরে কামরিয়েছে কিনা জানি না তবে গরুটি গত দুই তিন দিন যাবত কিছু খায় না বলে গরু মালিক আমার কাছে বিক্রয় করে। এদিকে রোগ আক্রান্ত জবাই করা গরুর মাংস স্থানীয় জনসাধারন সহ সাংবাদিকরা ব্রিক্রয় করতে নিষেধ করলে আব্দুস সাত্তার তাৎক্ষনিক ভাবে মাংস বাজারের সুনাম রক্ষার্তে ভ্যান যোগে জাবাই করা গরুৃর মাংস কাকশিয়ালি ব্রিজ থেকে নদীতে ফেলে দেয়। তবে  স্থানীরা জানায় ইতি পূর্বে তার বিরুধ্যে আরো অভিযোগ রয়েছে। জানা গেছে কালিগঞ্জ শ্যামনগর সড়কের ফুলতল মোড় নামক স্থানে রাস্তার পাশে সাত/আটটি গরুর মাংস বিক্রয়ের দোকান রয়েছে। এসব দোকানের কসাইরা ভোরে আযান দেওয়ার পর থেকেই গরু জবাই করে থাকে এবং উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ক্রেতারা এখান থেকে মাংস ক্রয় করে। বর্তমানে ভারত থেকে গরু আশা বন্ধ হওয়ায় ২৫০ টাকা গরুর মাংস এখন ৩৫০ টাকা দরে বিক্রয় হচ্ছে।