কালিগঞ্জে সন্ত্রাসীরা দুটি গাছ কেটে নিয়েও হুমকি দিচ্ছে


326 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালিগঞ্জে সন্ত্রাসীরা দুটি গাছ কেটে নিয়েও হুমকি দিচ্ছে
মার্চ ৯, ২০১৭ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ::
ভোগদখলীয় জমিতে ২৫ বছর আগে লাগানো দুটি গাছ সন্ত্রাসী কায়দায় কেটে নিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ নিয়ে কথা বললেও তারা উল্টো চার্জ করে হুমকি দেয়। নিরুপায় হয়ে পুলিশের আশ্রয় নিয়েছিলাম। কিন্ত সেখানেও কোনো বিচার পাননি বলে জানিয়েছেন কালিগঞ্জের মো. আবুল কাসেম।
বৃহস্পতিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ কথা তুলে ধরেন। আবুল কাসেম বলেন, তিনি কালিগঞ্জের নাজিমগঞ্জ বাজারের সওদাগর বস্ত্র বিতানের ম্যানেজার। তার প্রতিষ্ঠান মালিকের নাম শীতলপুর গ্রামের মনিরুল ইসলাম। ম্যানেজার আবুল কাসেম জানান তার প্রতিষ্ঠান মালিকের দুটি  গাছ ৮ ডিসেম্বর রাতের আঁধারে সন্ত্রাসী কায়দায় কেটে নেন বসন্তপুর গ্রামের কেনা কারিকরের ছেলে নুর ইসলাম, ভেলু কারিকরের ছেলে আজিজ কারিকর, আবুল কাসেম গাজির ছেলে শাহজাহান ও বাতুয়ারডাঙ্গা গ্রামের আরশাদ গাজির ছেলে হযরত আলি। তারা গাছ কেটে ওই জমিতে ঘরের চাল তুলে দেয়।
বিষয়টি জানতে পেরে পরদিন মনিরুল ইসলাম তাদের কাছে গাছ কাটার কারণ জানতে চাইলে তারা উল্টো হুমকি দেয়। পরে ১১ ডিসেম্বর কালিগঞ্জ থানায় এ বিষয়ে একটি অভিযোগ দেওয়া হয়। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লস্কার জায়েদুল ইসলাম অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য এএসআই শরিফুল ইসলামকে নির্দেশ দেন। কিন্তু পুলিশ আজ অবধি এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়নি। এ বিষয়ে ২৪ জানুয়ারি কালিগঞ্জ থানায় যেয়ে ওসির সাথে সাক্ষাত করে জানতে চাইলে তিনি কোনোরকম সহযোগিতা করেন নি। এ পর্যন্ত মামলাও হয়নি।  এরপর এএসপি কালিগঞ্জ সার্কেলের কাছে একই অভিযোগ নিয়ে গেলে সেখান থেকেও একই আচরন করা হয়।
আবুল কাসেম সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন পুলিশের কাছ থেকে কোনো সহায়তা না পাবার সুযোগে গাছ কর্তনকারী সন্ত্রাসীরা নানা ধরনের হুমকি ধামকি অব্যাহত রেখেছে। পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় মনিরুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা ভীত সন্ত্রস্থ হয়ে পড়েছেন। এমনকি বাদিপক্ষ নিরাপত্তাহীনতার মুখে পড়েছেন বলে দাবি করেন আবুল কাসেম। এ বিষয়ে তিনি সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।