কালিগঞ্জে স্লুইচ গেট অবমুক্তির দাবীতে চিংড়ি চাষিদের মানববন্ধন


382 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালিগঞ্জে স্লুইচ গেট অবমুক্তির দাবীতে চিংড়ি চাষিদের মানববন্ধন
ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৭ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আসাদুজ্জামান ও রাহাত রাজা ::
চিংড়ি চাষের জন্য পানি চাই, দিতে হবে । লোনা পানি নিয়ে বাণিজ্য ও চাঁদাবাজি চলবেনা, চলবেনা, এই শ্লোগানকে সামনে রেখে স্লুইচ গেট অবমুক্ত করার দাবীতে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার রতনপুর ও ধলবাড়িয়া ইউনিয়নের অসহায় চিংড়ি চাষীরা মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে। সোমবার বেলা ১১টায় কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সামনে সহস্্রাধিক চিংড়ি ঘের মালিকরা এ মানববন্ধন ও সমাবেশে অংশ নেয়।
কালিগঞ্জের রতনপুর ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য আশরাফ হোসেনের সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন, ধলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান গাজী শওকত হোসেন, রতনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুল হোসেন, সালাউদ্দীন, ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলামসহ বিভিন্ন ঘের মালিকরা।


মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, রতনপুর ও ধলবাড়িয়া দুটি ইউনিয়নের শত শত ঘের মালিকরা দীর্ঘদিন যাবত  ২৫/৩০ টি মৌজার বিলে সাড়ে চার হাজার বিঘা জমিতে মৎস্য ঘের করে জীবিকা নির্বাহ করছে। ২০০৩ সাল থেকে ১৪ বছর যাবত কালিন্দি নদী হতে রতনপুর ইউনিযনের শিবপুর স্লুইচ গেট দিযে লোনা পানি উত্তোলন করে তারা মৎস্য ঘের করে আসছেন। কিন্তু হঠাৎ করে সম্প্রতি রতনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুস শাহাদাৎ রাজা, সভাপতি সজল মূখার্জি,  ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুম বিল্লাহ সুজনসহ ৭/৮ জন এ এলাকার ঘের মালিকদের কাছে দশ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেন। ঘের মালিকরা উক্ত চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করায় তারা স্লুইচ গেটের কপাট বন্ধ করে দেন। এর ফলে এ এলাকার হাজার হাজার ঘের মালিক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন। তারা আরো বলেন, এহেন চাঁদা বাজদের দৌরাতœ বন্ধ না হলে একদিকে যেমন হাজার হাজার ঘের মালিক নিঃস্ব হবে, অন্যদিকে, রাষ্ট্রীয়ভাবে চিংড়ি থেকে রপ্তানী আয় কমে যাবে। ঘের মালিকরা যাতে শান্তিপূর্ণভাবে এলাকায় মৎস্য চাষ করতে পারেন সে জন্য তারা উক্ত স্লুইচ গেট দিয়ে অবাধে যাতে পানি উত্তোলনের দাবি জানায়। বিষয়টি নিরসনের জন্য ঘেরমালিকরা পানি সম্পদ সচিব, স্থানীয় সংসদ সদস্য, পানি উন্নয়ন বোর্ডের চেয়াম্যান ও জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরাসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত আবেদনও দিয়েছেন।
রতনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুস শাহাদাৎ রাজা, সভাপতি সজল মূখার্জি জানান, মানববন্ধনকারীরা আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছে তা সঠিক নয়। এলাকার মানুষের স্বার্থেই স্লুইচ গেট বন্ধ করে রাখা হয়েছে।
##