কালিগঞ্জ সংবাদ ॥ মৌতলায় যুব ফোরামের তিনদিন ব্যাপী প্রশিক্ষন


204 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালিগঞ্জ সংবাদ ॥ মৌতলায় যুব ফোরামের তিনদিন ব্যাপী প্রশিক্ষন
আগস্ট ৮, ২০১৯ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সুকুমার দাশ বাচ্চু ::

মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগীতায় ও বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থা লিডার্সের আয়োজনে যুব সংহতি ও সামাজিক পরিবর্তন বিষয়ক ভিত্তিমুল প্রশিক্ষন প্রকল্পের বাস্তবায়নে সমাজ পরিবর্তনে যুব সংহতি ৩দিন ব্যাপী প্রশিক্ষন সমাপ্ত হয়েছে। ৮ আগষ্ট বিকাল সাড়ে ৪টায় মৌতলা শিমু রেজা এমপি কলেজে মৌতলা ইউনিয়ন যুব সংহতি ফোরাম সদস্যদের অংশ গ্রহনে ৩দিন ব্যাপী ব্যাপী প্রশিক্ষনের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মৌতলা ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান। মৌতলা যুব ফোরামের সভাপতি মোতাহার হোসেনের সভাপতিত্বে ও লিডার্স এর উপজেলা সমন্বয়কারী সুলতা সাহার সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন কালিগঞ্জ সাংবাদিক সমিতির সভাপতি শেখ আনোয়ার হোসেন, কালিগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও লিডার্সের উপজেলা উপদেষ্ঠা পরিষদের সম্পাদক সুকুমার দাশ বাচ্চু, প্রকল্প সমন্বয়কারী প্রশিক্ষক শিখন চন্দ্র, মৌতলা ইউনিয়ন সমন্বয়কারী শম্পা বিশ্বাস, প্রশিক্ষনাথীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাহানাজ পারভীন, মোঃ সহিয়ান, বিপ্লব প্রমূখ। প্রশিক্ষনে নারী ক্ষমতায়ন, বাল্য বিবাহ ও মাদকদ্রব্য প্রতিরোধ, দলীয় সাংগঠনিক নেতৃত্ব, দায়িত্ব ও কর্তব্য অন্যান্য বিষয়ে ধারনা দেওয়া হয়।

#

কালিগঞ্জ উপজেলায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল হাজিরা ও মাল্ট্রি মিডিয়া ক্লাসের আওতায় আনা হবে : উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী।

সুকুমার দাশ বাচ্চু ::

জননেত্রী প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল ডিজিটাল বাংলাদেশের কার্যক্রম এখন পল্লী গ্রামে তৃনমুল পর্যায়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার হচ্ছে। বর্তমান তথ্য প্রবাহের যুগে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নে হাতে কলমে শিক্ষার পাশাপাশি মাল্ট্রি মিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের লেখা পড়ার কার্যক্রম তুলে ধরা হচ্ছে। শিক্ষার্তীরাও মনোযোগ সহাকারে শিখন পদ্ধতি গ্রহন করছে। তেমনই একটি ডিজিটাল মাল্ট্রি মিডিয়া ক্লাসরুমে শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহন করেছে কালিগঞ্জ উপজেলার মৌতলা ইউনিয়নের পানিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। সরে জমিনে পানিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের একটি কক্ষ শিক্ষার্থীদের জন্য মাল্ট্রি মিডিয়া ক্লাস রুম হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে। পাশাপাশি বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীদের ডিজিটাল ফিঙ্গার প্রিন্ট হাজিরা নেওয়া হচ্ছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা পারভীন আক্তার জানান, কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় পানিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিজিটাল হাজিরা সহ মাল্ট্রিমিডিয়া ক্লাস রুম করতে সক্ষম হয়েছে। বর্তমান শিক্ষার্থীদের আধুনিক শিক্ষার শিক্ষিত করতে মাল্ট্রিমিডিয়া ক্লাস রুম খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পাশাপাশি বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের টিফিনের সময় মিড ডে মিল চালুর কথা ভাবছি। বিদ্যালয়ে মাল্ট্রি মিডিয়া ক্লাস রুম ও ডিজিটাল ফিঙ্গার প্রিন্ট হাজিরা চালু হওয়ায় এলাকার সাধারণ মানুষ অভিভাবক, ও বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা ভূয়সি প্রশংসা ও অভিনন্দন জানিছে। এবিষয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কালিগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাঈদ মেহেদী জানান বর্তমান সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মানে সরকার অনেক অগ্রগতি ও উন্নয়নে বিশ্বের কাছে আজ মডেল হয়েছে। কালিগঞ্জ উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আগামীতে মাল্ট্রি মিডিয়া ক্লাস রুমের পাশাপাশি ডিজিটাল ফিঙ্গার প্রিন্ট হাজিরা এবং শত ভাগ বিদ্যুতায়ন করা হবে। তিনি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য প্রযুক্তিলীগ কালিগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি মাসুদ পারভেজ ক্যাপ্টেন ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির হান্টু সহ তাদের ইউনিয়ন কমিটি গুলো আমাকে বর্তমান তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ে এবং মাল্ট্রিমিডিয়া ক্লাস রুম, ডিজিটাল হাজিরা, শত ভাগ বিদ্যুতায়ন, সুপেয় পানি, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন সহ সার্বিক বিষয়ে এলাকার একটি চিত্র তুলে ধরায় আমার কাজ করতে সুবিধা হবে। আমি জনগনের ভোটে নির্বাচিত হয়েছি মানুষের আতœসামাজিক উন্নয়ন দারিদ্র বিমোচন সহ কালিগঞ্জ উপজেলাকে একটি মডেল উপজেলা হিসাবে গড়ে তুলতে চাই।

#

কালিগঞ্জে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

সুকুমার দাশ বাচ্চু ::

কালিগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৮আগষ্ট বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কনফারেন্স রুমে মাসিক এ সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আব্দুস সেলিম, সভায় বক্তব্য রাখেন এমসি এইচ এফ পি ডাঃ মফিজুল ইসলাম, কালিগঞ্জ নবযাত্রার প্রতিনিধি রুবিনা আক্তার, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি শেখ আনোয়ার হোসেন, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সুকুমার দাশ বাচ্চু, মাঠ কর্মী মিজানুর রহমান প্রমূখ। সভায় কালিগঞ্জ উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মাঠ কর্মী ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এসময় বক্তারা বলেন বর্তমান সরকারের লক্ষ্য এস.ডি.জি বাস্তবায়নে অগ্রনী ভুমিকা রাখা। সেই লক্ষ্য নিয়ে সবার জন্য সু স্বাস্থ্য ও কল্যান নিশ্চিত করা হবে। মাঠ কর্মীদের গর্ভবতী মায়েদের সু-রক্ষায় বিশেষ করে প্রসব পরবর্তী ৪২দিনের মধ্যে ৪টি ধাপ স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে হবে। শিশু জন্মের পর প্রথমেই মায়ের শাল দুধ পান করাতে হবে। এছাড়া ৬মাস পর্যন্ত শিশুর শুধু মাত্র মায়ের দুধ খাওয়াতে হবে। সভায় মাঠ কর্মীদের কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়।

#

কালিগঞ্জে বিধবা, স্বামী নিগৃহীতা ও প্রতিবন্ধীদের ১ কোটি ২০ লক্ষ টাকার ভাতা প্রদান

সুকুমার দাশ বাচ্চু ::

বিধবা ভাতার প্রচলন শেখ হাসিনার উদ্ভাবন এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে বর্তমান সরকার দেশে বিধবা, স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ও প্রতিবন্দ্বীদের ভাতা দিয়ে এক যুগন্তকারী পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। তারই অংশ হিসাবে কালিগঞ্জ উপজেলায় ১২টি ইউনিয়নে প্রায় ২ হাজার ব্যক্তিকে ভাতার আওতায় আনা হয়েছে। বর্তমান সরকারের মহতী এই উদ্যোগে বিধবা ও বয়স্ক ভাতা এবং প্রতিবন্দ্বী ভাতা ঈদ উপলক্ষ্যে গত ৬মাসের ভাতার টাকা পাওয়ায় বিধবা ও বয়স্ক ভাতা এবং প্রতিবন্দ্বী ভাতা পাওয়ায় তারা শান্তিপূর্ণ ভাবে ঈদ উদ্্যাপন করতে পারবে। ৮আগষ্ট বৃহস্পতিবার কালিগঞ্জ জনতা ব্যাংক শাখা কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, কালিগঞ্জ উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ভাতা ভোগী পুরুষ ও মহিলা বর্ষায় ভিজে সারিবদ্ধ ভাবে ভাতা নেওয়ার জন্য দাড়িয়ে আছে। ব্যাংকটিতে তীল ধরানোর ঠাই নেই। ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মাহবুবুর রহমান এপ্রতিনিধি কে জানান আমরা ব্যাংকের সকল স্টাফরা সরকারের এই ভাতা প্রদানের বিষয়ে আন্তরিক ভাবে কাজ করছে। গত এক সপ্তাহ ধরে উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের স্বামী পরিত্যাক্তা, বয়ষ্ক ভাতা ও প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা দেওয়া হচ্ছে। বর্ষার মধ্যেও আমরা তাদের কে দ্রুত টাকা দেওয়ার জন্য চেষ্টা করছি। জানুয়ারী ২০১৯ থেকে জুন ১৯ পর্যন্ত ২ হাজার ব্যক্তিদের প্রায় ১ কোটি ২০ লক্ষ ভাতার টাকা দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা প্রত্যেক কে মাসে ৫শ টাকা হারে ৬ মাসের ৩ হাজার টাকা এবং প্রতিবন্দ্বীদের মাসে ৭শত টাকা হারে ৬মাসে ৪২শত টাকা এক সাথে প্রদান করা হয়।

#