কালীগঞ্জে ভ্রাম্যমান বাজার


123 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কালীগঞ্জে ভ্রাম্যমান বাজার
এপ্রিল ২৩, ২০২০ কালিগঞ্জ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

সুকুমার দাশ বাচ্চু, কালিগঞ্জ ::

কালীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদের উদ্যোগে এবং উপজেলা মৎস্য অফিস ও উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় অনলাইন মোবাইল ফোন কলের মাধ্যমে ভ্রাম্যমান বাজার ও কালিগঞ্জ ফ্রেশ এন্ড সেপ ফিশ মার্কেট চালু হয়েছে কালীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন বাজার ও মার্কেট গুলিতে সাধারণ মানুষ ঘর থেকে বাইরে এসে কেনাকাটার জন্য মানুষের সমাগম না হয় করোনা ভাইরাস সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে ঘরে থেকে তাদের নিত্য প্রয়োজনীয় মাছ মাংস শাক সবজি অন্যান্য জিনিসপত্র মোবাইল ফোনে অর্ডার করলেই হোম ডেলিভারি হিসেবে বাড়িতে পৌঁছে দিচ্ছে ইতিমধ্যে উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নে কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ভ্যানযোগে ১১০ টি ভ্রাম্যমান বাজার গ্রাম এলাকায় বাড়িতে বাড়িতে জিনিসপত্র বিক্রি করছে এ বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক রাসেল জানান করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ঘরে বসে কেনাকাটা করছে সাধারণ মানুষ তিনি বলেন কালীগঞ্জ উপজেলায় প্রায় সকল ব্যবসা কে অনলাইনের আওতায় নিয়ে আসার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে এ বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সাঈদ মেহেদী জানান উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদেরপরামর্শ বর্তমান ক্রান্তিলগ্নে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সাধারণ মানুষকে ঘরে রাখতে উপজেলা মৎস্য অফিস ও কৃষি অফিস অনলাইন মোবাইল মার্কেটিং কার্যক্রম শুরু করেছে এজন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি বর্তমান ঘরে থেকে মালামাল ক্রযছের জন্য এই বাজার কার্যক্রমকে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রুহুল আমিন জানান উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ১১০ টি ভ্যানযোগে ভ্রাম্যমান বাজার গ্রামের মানুষের বাডছি বাডছি গিযছে তাদের নিত্য প্রযছোজনীয় শাকসবজি ফলমূল অন্যান্য প্রযছোজনীয় জিনিস পৌঁছে দিচ্ছি ফলে ক্রেতা সাধারণ বাইরে না আসে সুলভ মূল্যে বাডছিতে বসেই বাজার করতে পারছে অন্যদিকে কর্মহীন মানুষ ভ্যানযোগে বাজার কার্যক্রমের সাথে যুক্ত হযছে তারা ভালো আয় রোজগার করছে প্রতিদিন একজন উদ্যোক্তা এর গর বিক্রয় হয় ৩৫০০ টাকা যারা চটের উপর ব্যবসা করে তাদেরকে এ ভ্রাম্যমান বাজারে আগ্রহী করার জন্য প্রচেষ্টা চলছে এছাডছা তিনি আরও বলেন ছোট বাজার গুলি বন্ধ রাখা যাতে করে মানুষ বাইরে বাজারে কম যায় এছাডছা আমরা কালীগঞ্জ উপজেলা থেকে সকল রকম প্রডাক্ট দিযছে অনলাইন মার্কেট চালু করতে যাচ্ছি যেটি শুধু কালিগঞ্জ নয় সমগ্র বাংলাদেশ মোবাইল এর মাধ্যমে অর্ডার করলে জিনিস পৌঁছে যাবে তিনি আরো বলেন মধু ঘি আম যে কোন ফলমূল শাকসবজি বিভিন্ন মশালা অন্যান্য জিনিস সরবরাহ করতে পারবে এটি শুধু করো না ভাইরাসের সময় নয় সারাবছর কার্যক্রম চালানোর উদ্যোগ নিতে যাচ্ছি বর্তমান কালীগঞ্জে ভ্রাম্যমান ভ্যানযোগে কাঁচা বাজার এলাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ভালো সাডছা জাগিযছেছে এদিকে কালীগঞ্জ উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান করোনাভাইরাস সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে সাধারণ মানুষ যাতে তাদের প্রযছোজনীয় বাজারের মাছ ঘরে বসে পেতে পারে সেজন্য কালিগঞ্জ ফ্রেশ এন্ড সেপ ফিশ মার্কেট চালু করা হযছেছে ক্রেতাসাধারণ অনলাইন ফোন কলের মাধ্যমে চাহিদা জানালেই ন্যায্যমূল্যে বিভিন্ন ধরনের মাছ পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে গ্রামের বাডছিতে তিনি বলেন করো না ভাইরাস এর সংক্রমণ থেকে বাঁচতে হলে ঘরে থাকা মানুষের আমিষের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে কালীগঞ্জ উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক রাসেল ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদির অনুপ্রেরণায় ও মৎস্য অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় চালু হযছেছে এই কালিগঞ্জ প্রেস এন্ড সেইফ ফিশ মার্কেট তিনি আরো বলেন বর্তমান সমযছে করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সাধারণ মানুষ ঘর বন্দী জীবন যাপন করছে নিত্যপ্রযছোজনীয় দ্রব্য কিনতেও অনেক ক্ষেত্রে বাজারে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না এসব ভাবনা থেকে অনলাইনে অর্ডার নিযছে চাহিদা মোতাবেক মাছ পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে কিছু শিক্ষিত বেকার যুবকরা এই কাজের সাথে যুক্ত হযছেছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মাছের চাহিদা অনুযায়ী অর্ডার নিযছে মাছ পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে সুস্থ পরিবেশের মৎস্য ঘের বা পুকুর থেকে মাছ সংগ্রহ করে ক্রেতাদের কাছে সরবরাহ করা হচ্ছে দাম বাজার মূল্য থেকে বেশি নয় এতে ভালো সাডছা পাওয়া গেলে ভবিষ্যতে এসেবা অব্যাহত থাকবে অর্ডারের একটি ফেসবুক পেজ ও দুটি মুঠোফোন নম্বর দেওয়া হযছেছে বর্তমানে অর্ডার অনুযায়ী যে মাছগুলো দেওয়া হচ্ছে এরমধ্যে গলদা চিংডছি বাগদা চিংডছি ভেটকি মাছ ঘেরের টেংরা মাছ মনোসেক্স তেলাপিয়া হরিনা চিংডছি তবে মাছের ধরন অনুযায়ী মূল্য নির্ধারণ করা হয় অর্ডার অনুযায়ী মাছ সরবরাহ কাজে নিযুক্ত আছেন ফারুক ও মামুন নামের দুই যুবক তারা গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী ঘর থেকে টাটকা মাছ ক্রয় করে বাডছিতে পৌঁছে দেয় দিন দিন হোম ডেলিভারি এলাকায় সাডছা জাগিযছেছে শুধু তাই নয় ঢাকা বরিশাল মানিকগঞ্জ জেলাসহ অন্যান্য জেলা থেকে অর্ডার আসছে ঘরে থাকুন নিরাপদে থাকুন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলুন

#