‘কৃষকরা সচেতন থাকলে ধান ক্ষেতে পোকার আক্রমণ হবে না’


540 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘কৃষকরা সচেতন থাকলে ধান ক্ষেতে পোকার আক্রমণ হবে না’
ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯ কৃষি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার:

সাতক্ষীরায় বোরো ধানে ক্ষতিকর পোকা দমনে জৈব বালাইদমন পদ্ধতিতে ক্ষেতে গাছের ডাল পুঁতে পার্চিং উৎসব শুরু হয়েছে। সদর উপজেলার ভাড়ুখালী ব্লকে ব্যাপক উৎসব মুখর পরিবেশে পার্চিং উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে ৯নং ঘোনা ইউপি মেম্বার মো. মুতাছিম বিল্লাহ’র সভাপতিত্বে উৎসবে বক্তব্য রাখেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা তামান্না তাছনীম, তারক বিশ্বাস, কৃষক শাহিন হোসেন, আব্দুর রশিদ, বাবলু, হাফিজুল ইসলাম, সিআইজি সদস্য সানদরা খাতুন, সালমা খাতুন প্রমুখ। কৃষক জানান, এটি একদিকে যেমন বিষমুক্ত পদ্ধতি অন্যদিকে রক্ষা পাচ্ছে ক্ষেতের ফসল। ক্ষেতে পোকা দমনে স্থানীয় কৃষি বিভাগের পরামর্শে বোরো ক্ষেতে জৈব বালাইদমন পদ্ধতি বা পার্চিং পদ্ধতির ব্যবহার চলছে। সব ক্ষেতেই শোভা পাচ্ছে সহজলভ্য গাছের ডাল। কৃষকরা আরো জানান, জেলার সব এলাকায় পার্চিং শুরু হওয়ায় কমছে ফসলের উৎপাদন খরচ। পার্চিংয়ের গাছে পাখি বসে তাদের আমন ক্ষেতের পোকাগুলোকে প্রতিনিয়ত খেয়ে ফেলছে। ফলে এখন পর্যন্ত পোকার আক্রমণ দেখা যায়নি। উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা তামান্না তাছনীম জানান, পোকা দমনে পার্চিং ও আলোর ফাঁদ পদ্ধতিতে কৃষকদের নিয়মিত উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। উঠান বৈঠক করে সমন্বিত উদ্যোগের পরামর্শ ও লিফলেট দেওয়া হচ্ছে। জীবন্ত পার্চিং, মৃত পার্চিং ও আলোর ফাঁদ পদ্ধতি প্রয়োগে সোনার ফসলে ভরে উঠছে আমন ক্ষেত। কৃষকরা সচেতন হওয়ায় পোকার আক্রমণ তেমন একটা দেখা যাচ্ছে না বলেও দাবি করেন তিনি। ধান ঘরে তোলা পর্যন্ত কৃষকরা এভাবে সজাগ ও সচেতন থাকলে আমন ক্ষেতে পোকা আক্রমণ করতে পারবে না বলে আশাবাদী তিনি।

#