‘কৃষ্ণপক্ষ’ সিনেমার শুটিং-এ মাহিয়া মাহি। ছবি- আব্দুল মান্নান


2632 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘কৃষ্ণপক্ষ’ সিনেমার শুটিং-এ মাহিয়া মাহি। ছবি- আব্দুল মান্নান
অক্টোবর ৫, ২০১৫ ফটো গ্যালারি বিনোদন
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :
হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস ‘কৃষ্ণপক্ষ’ অবলম্বনে অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন  শুরু করলেন তার প্রথম সিনেমার শুটিং। সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করছেন মাহিয়া মাহি, রিয়াজ, ফেরদৌস।

এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে তানিয়া আহমেদ, মৌটুসী বিশ্বাসকে। এক মাসের মধ্যেই কাজ শেষ করে হুমায়ূনের জন্মদিনে তাকে শ্রদ্ধা জানানো হবে এই সিনেমা মুক্তি দেওয়ার মাধ্যমে। তাই কাজের তাড়াটা একটু বেশি।

শুক্রবার উত্তরার শুটিং হাউজ হৈ চৈ-এ শুরু হলো শুটিং। পরিচালক শাওন ছুটছেন সকাল থেকেই। কোন দৃশ্য কখন ধারণ করা হবে সে আলোচনা সারছেন সহকারীদের সঙ্গে। এর মধ্যেই হাঁক দিলেন “মাহিরা সবাই এসেছে? মৌটুসী, তানিয়ারা সব কোথায়?”

সেট রেডি হতেই সহকারীদের হাকডাক, “ম্যাডাম সব রেডি। আমরা টেকে যাবো।” শাওন এলেন, জীবনে এই প্রথম মনিটরের সামনে চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে। এর আগেও এসেছেন বহুবার, নাট্য নির্মাতা হয়ে। বেশ আত্মবিশ্বাসীই দেখাচ্ছিলো হুমায়ূনপত্নীকে।

শিডিউল অনুযায়ী সেটে ঢুকে পড়লেন মাহিয়া মাহি, তানিয়া আহমেদ আর ছোট্ট মেয়ে আরিয়াসহ মৌটুসী বিশ্বাস।

তিনতলার ছাদ থেকে ঝুলছে বয়স্ক লতাপাতা। দোতলার ঝুল বারান্দায় খোলা চুলে তিন বছর বয়সী চপলা মেয়ে আরিয়াকে কিছু খাওয়ানোর চেষ্টায় মশগুল মা মৌটুসী।

নিচতলার বারান্দায় সোফা সেটে জমিদারি কায়দায় বসে আছেন অভিনেতা কায়েস চৌধুরী। রাশভারী এই ব্যক্তি গৃহকর্মীকে কিসের যেন নির্দেশনা দিচ্ছেন। মহড়া চলছিল। কাছে যেতেই জানালেন, চরিত্রটি বেশ আগ্রহোদ্দীপক।

ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ক্রেনে ক্যামেরা বাঁধা। একইসঙ্গে এক ও দুই তলার দৃশ্য ধারণ করা হবে। সব মিলিয়ে ক্যামেরার ফ্রেমে খেলে বেড়াবে মোট চারটি চরিত্র। কিন্তু বিনা নিমন্ত্রণে বৃষ্টির আগমনে কিছুটা দেরি হয়ে গেল দৃশ্যায়নের। ততক্ষণে সকাল গড়িয়ে দুপুর হয়েছে।

দুপুরের খাবারের পর আবার রেডি ইউনিট। মনিটরে চোখ নির্মাতা-অভিনেত্রী শাওনের। এবার সব কিছু ঠিকঠাক, শুরু হলো দৃশ্যায়নের কাজ। মৌটুসী বিশ্বাসের মেয়ে আরিয়ার যাত্রা শুরু হলো চলচ্চিত্রে। এত আয়োজন চারপাশে, আরিয়া তো ঠিক বুঝে উঠতে পারছে না। মৌটুসীকে একটু কষ্ট করতে হলো তাই।

মৌটুসী –আরিয়ার বেশ কয়েকটি শট নেওয়া হল। কিন্তু মনঃপুত হলো না শাওনের। আরও বেশ কয়েকবার নেওয়ার পর নিখুঁত শট পাওয়া গেলো মৌটুসী আর আরিয়ার।

ক্যামেরা সেট আপ সরিয়ে নেওয়া হল শুটিং হাউজের প্রধান ফটকের কাছে। এবার মাহির দৃশ্য ধারণের পালা। তাঁতের শাড়িতে তিনি এখন ’অরু’।  একান্তে আওড়াচ্ছেন সংলাপগুলো। ক্যামেরা ছুঁলেন, সালাম করলেন এরপর শুরু হলো ‘কৃষ্ণপক্ষ’-এ তার পালা।

প্রস্তুত মাহি, মনিটরে ওপাশে প্রস্তুত শাওনও। কিন্তু হঠাৎ এগিয়ে এলেন শাওন। মাহির শাড়িটা পরিপাটি করে দিয়ে বললেন, “চলো মাহি, শুরু করা যাক।”

নাচ-গান-অ্যাকশনভিত্তিক বাণিজ্যিক সিনেমার বাইরে প্রথম অন্য ঘরানার ছবিতে কাজ করছেন। তবুও বেশ স্বতঃস্ফূর্ত মনে হলো মাহিকে। বেশ কয়েক বার শট নেয়ার পর হুমায়ূনপত্নীর মুখে স্বস্তির বুলি – “হ্যাঁ, মাহি, একদম মন মতো শট পেয়েছি। ধন্যবাদ।”

ততক্ষণে সেটে এসে হাজির তানিয়া আহমেদ – এস আই টুটুল দম্পতি। তানিয়া আহমেদও অভিনয় করবেন এই সিনেমার একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে। তাকে নিয়ে পরিচালক শাওনকে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছেন টুটুল।

সে ফুরসতেই কথা হল ‘কৃষ্ণপক্ষ’- এর নির্মাতা মেহের আফরোজ শাওনের সঙ্গে। প্রি-প্রোডাকশনে কম সময় পেলেও, দৃশ্যায়নে কোনো কার্পণ্য করবেন না তিনি। ১৩ নভেম্বর হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে ‘কৃষ্ণপক্ষ’ যথার্থ আয়োজনেই মুক্তি পাবে বলে জানালেন শাওন।—সুত্র:-বাংলাদেশ প্রতিদিন।