কয়রায় টানা বর্ষনে জনজীবন বিপর্যস্ত


152 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কয়রায় টানা বর্ষনে জনজীবন বিপর্যস্ত
জুলাই ৩০, ২০২১ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

মৎস্য ঘের ও বীজতলার ব্যাপক ক্ষতি

শেখ মনিরুজ্জামান মনু ::

খুলনার কয়রায় কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিপাতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। বিরামহীন বৃষ্টির কারনে ভেসে গেছে মৎস্য ঘের ,ক্ষতি হয়েছে ফসলের এবং আমন ধানের বীজতলার। বন্ধ হয়ে পড়েছে সকল কার্যক্রম। মানুষের মাঝে নেমে এসেছে দুর্ভোগ। আম্ফান ও ইয়াসের ক্ষত কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই অবিরাম বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে অসংখ্য মৎস্য ঘের, নষ্ট হয়েছে ক্ষেতের ফসল এবং আমন ধানের বীজতলার। এ যেন কয়রার মানুষের উপর মরার পরে খাড়ার ঘা। কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিপাতের ফলে উপজেলার সাতটি ইউনিয়ানে বীজ তলা, ফসলের মাঠ, পুকুর,মৎস্য ঘের রাস্তা ঘাট ও বাড়ির আঙ্গিনা তলিয়ে গেছে। যার ফলে মৎস্য সেক্টর ও আমন ধানের বীজতলার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গত ২৬ মে ইয়াশের প্রভাবে বেঁড়িবাধ ভেঙ্গে উপজেলার ৪ টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়ে পানি বন্ধী হয়ে পড়ে লক্ষাধিক মানুষ। ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধ মেরামত করা হলেও আটকে পড়া পানি নামতে না নামতেই বৃষ্টির পানিতে ফের একাকার হয়ে গেছে এলাকা। টানা বৃষ্টিপাতের কারনে ক্ষতিগ্রস্ত বেঁড়িবাধ নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে উপকুলীয় এলাকার মানুষেরা। সব চেয়ে দুর্ভোগে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষ। ঘরের বাহিরে যেতে পারায় তাদের সংসারে চলছে অনেক কষ্টে,সেই সাথে যানবাহনের চালকেরা পড়েছে বিপাকে। ব্যবসায়ীরা ক্রেতার জন্য বসে থাকলেও মিলছে না ক্রেতা। অলস সময় পার করছে তারা। উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়ানের দেয়াড়া গ্রামের কৃষক সদর উদ্দিন আহমেদ বলেন, কয়েক দিনের টানা বৃষ্টির ফলে আমন ধানর বীজতলা তলিয়ে গেছে। দ্রুত সময়ের ভিতরে যদি পানি না নামে তাহলে বীজতলা সব নষ্ট হয়ে যাবে । উপজেলা মৎস্য অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)এস এম আলাউদ্দিন আহমেদ বলেন, কয়েকদিনের টানা বর্ষনে উপজেলায় অসংখ্য মৎস্য ঘের তলিয়ে গেছে। যার ফলে মৎস্য চাষীরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, টানা বৃষ্টির কারনে সত্তর শতাংসো আমন ধানের বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। ২/৩ দিনের মধ্যে পানি নেমে গেলে বীজতলার কোন ক্ষতি হবেনা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস বলেন, কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে মৎস্য ঘের,পুকুর , আমন ধানের বীজতলা,রাস্তা-ঘাট সহ ক্ষেতের ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে। ক্ষয় ক্ষতির তালিকা প্রস্তুতের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে বলা হয়েছে।

#