খুলনাঞ্চলে মজুরী ও বোনাসের দাবীতে রাষ্ট্রায়াত্ব জুটমিলের উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকরা


358 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
খুলনাঞ্চলে মজুরী ও বোনাসের দাবীতে রাষ্ট্রায়াত্ব জুটমিলের উৎপাদন বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকরা
জুলাই ১৪, ২০১৫ খুলনা বিভাগ
Print Friendly, PDF & Email

ওয়াহেদ-উজ-জামান, খুলনা :
বকেয়া সাপ্তাহিক মুজরী, ঈদ বোনাসসহ ৫দফা দাবীতে খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ব ৭ পাটকলের শ্রমিক-কর্মচারীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে মিলের উৎপাদন বন্ধ রেখে মিলের প্রশাসনিক ভবন ঘেরাও ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। আজ থেকে অনিদৃষ্টকালের জন্য মিল বন্ধ করে ঈদের নামাজ রাজপথে আদায়সহ খুলনা যশোর মহাসড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছে প্রায় অর্ধ্বলক্ষ শ্রমিক-কর্মচারী।
প্রত্যেক মিলে ৪ থেকে ৫ সপ্তহর বকেয়া মজূরী কর্মচারীদের বেতন ও বোনাসের দাবীতে শ্রমিক-কর্মচারীা ফুঁেস ওঠে। সকাল সাড়ে ৮ টায় প্লাটিনাম জুবীলি জুট মিলের শ্রমিক-কর্মচারীরা উৎপাদন বন্ধ করে দেয়। এ সময় বিক্ষুদ্ধ শ্রমিকরা মিলের প্রশাসনিক ভবন ঘেরাও করে মজুরী ও বোনাসের দাবী জানায়। এ সংবাদ অন্যান্য মিলে ছড়িয়ে পড়লে ক্রিসেন্ট, ষ্টার, আলিম, ইর্ষ্টান, জেজেআই, কর্পেটিং মিলের শ্রমিক কর্মচারীরাও আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়। মঙ্গলবার বেলা ২ টা থেকে সকল পাটকলের শ্রমিকরা মিলের উৎপাদন বন্ধ করে দেয়। পরে বাংলাদেশ রাষ্টায়ত্ব পাটকল সিবিএ নন সিবিএ ঐক্য পরিষদের নের্তৃবৃন্দ জরুরী বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ঐক্য পরিষদের আহবায়ক মোঃ সোহরাব হোসেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন ঐক্য পরিষদের সদস্য সচিব মোঃ জাকির হোসেন,মোঃ কাওছার আলী মৃধা,মোঃ দ্বীন ইসলাম, মোঃ বেল্লাল হোসেন মল্লিক, খলিলুর রহমান, আঃ মান্নান,মো আলাউদ্দিন,জাহিদুল ইসলাম লাল প্রমুখ। বৈঠক শেষে ৫ দাবী আদায়ে নতুন কর্মসুচি ঘোষনা করেন শ্রমিকনেতারা। কর্মসুচির মধ্যে রয়েছে আজ থেকে সকাল ১০ টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত স্ব স্ব মিল থেকে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে লাগাতরা খুলনা যশোর মহাসড়ক অবরোধ, ঈদের ছুটি বাতিল করে ঈদের নামাজ রাজপথে আদায় করা, মিলগেটে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ। উল্লেখ, ৫ দফা দাবী আদায়ে দির্ঘদিন যাবত আন্দোলন চালিয়ে আসছিল শ্রমিকরা। তাদের আন্দোলন তীব্রতর হওয়ায় গত ২ জুলাই পাট মন্ত্রনালয়ের সভাকক্ষে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী মন্ত্রী মুহাঃ ইমাজউদ্দিন প্রামানিক ও প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজমের এবং বিজেএমেসির চেয়ারম্যন মেজর (অবঃ) হুমায়ন খালেদের সাথে বৈঠক করে শ্রমিক নেতারা। বৈঠকে রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকলের শ্রমিক-কর্মচারীদের ঈদের পূর্বেই সকল বকেয়া মজুরী, বিজেএমসির ও ২০ ভাগ মহার্ঘ ভাতা চলিতি সপ্তাহ থেকে বাস্তবায়নের প্রতিশ্র“তি দেন। এদিকে প্রতিশ্র“তি দিয়ে তা বাস্তবায়ন না হওয়ায় খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ব ৭ পাটকলের প্রায় অর্ধলক্ষ শ্রমিকরা ফুঁেস উঠে। এ দিকে সর্বশেষ পাওয়া খবরে  বিজেএমসির খুলনা জোনেরে লিয়াজো কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান বিজেএমসির নিজস্ব
তহবিল থেকে প্রত্যেক মিলের শ্রমিকদেরে এক সপ্তাহের বকেয়া মজুরী,কর্মচারীদের বেতন ও ঈদ উৎসব বোনাস প্রদানের সিদ্ধান্ত মিলগুলিতে ফ্যাক্স বার্তায় জানিয়ে দেয়া হয়েছে ।