খুলনার রূপসা নদে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা : লাখ দশর্কের ঢল


1188 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
খুলনার রূপসা নদে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা : লাখ দশর্কের ঢল
অক্টোবর ১০, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

থেকে ওয়াহেদ-উজ-জামান, খুলনা :
খুলনার রূপসা নদীতে শনিবার বিকেলে দশম বারের মত অনুষ্ঠিত গ্রাম বাঙ্গার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচে লাখ দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভীড় ছিল। অত্যন্ত আনন্দঘন ও উৎসব মুখর পরিবেশে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। বাইচ চলাকালে রূপসা নদীর প্রবল স্রোত ও ঢেউয়ের মাঝে মাঝিদের সাজ আর বাদ্যের ঝংকারে মুখরিত হয়ে ওঠে নদীর দু’তীর। গতিময় নৌকার অনবরত বৈঠা চালানো দেখে মুগ্ধ হয়ে যান হাজার হাজার মানুষ।
গ্রামীণফোনের সহযোগিতায় নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র জাকজমকপূর্ণ এই নৌকা বাইচের আয়োজন করে। নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় মোট ২৬ টি নৌকা অংশ নেয়। প্রতিটি নৌকাতে প্রায় অর্ধশত মাঝি ছিলেন। নৌকা বাইচে বড় গ্রুপে ডুমুরিয়ার মা গঙ্গা দল প্রথম, তেরখাদার ময়ূরপঙ্গী দ্বিতীয় এবং তেরখাদার ভাই ভাই জলপরী তৃতীয় স্থান লাভ করে। ছোট নৌকা গ্রুপে কয়রার সোনার তরী দল প্রথম, কয়রার ভাই ভাই টাইগার দ্বিতীয় এবং সাতক্ষীরার জয় মাকালী তৃতীয় হয়েছে।
নৌকা বাইচে বড় গ্রুপে প্রথম প্রথম পুরষ্কার ছিল এক লাখ টাকা, দ্বিতীয় পুরষ্কার ৬০ হাজার টাকা এবং তৃতীয় পুরষ্কার ৩০ হাজার টাকা। এছাড়া ছোট গ্রুপে প্রথম পুরষ্কার ছিল ৫০ হাজার টাকা, দ্বিতীয় পুরষ্কার ৩০ হাজার টাকা এবং তৃতীয় পুরষ্কার ২০ হাজার টাকা।
এদিকে নৌকা বাইচকে ঘিরে হাজার হাজার মানুষ মেতে ওঠেন উৎসবের আমেজে। মানুষের ঢল নামে নদীর দুই তীরে। ছোট বড় অসংখ্য ট্রলার, মাইক, বাদ্যযন্ত্র নিয়ে মানুষ বাইচের নৌকার সঙ্গে নদীপথে ঘুরে বেড়ান। নগরীর ১ নম্বর কাস্টমস ঘাট থেকে দুপুর দুইটায় নৌকা বাইচ শুরু হয়। শেষ হয় রূপসা সেতুর নিচে গিয়ে। র‌্যাব-পুলিশের কড়া নিরাপত্তার পাশাপাশি দায়িত্ব পালন করে নৌ বাহিনী ও কোস্টগার্ডের সদস্যরা।
এর আগে কাস্টমস ঘাটে নৌকা বাইচের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান, পুলিশ সুপার মোঃ হাবিবুর রহমান, গ্রামীণফোনের হেড অব রিজিওনাল সেলস-খুলনা এ এম সাজ্জাদ হোসেন ও বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ উজ জামান। সভাপতিত্ব করেন নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি মোল্লা মারুফ রশীদ।
পরে সন্ধ্যায় রূপসা সেতুর নিচে পুরস্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছাড়া নৌকা বাইচ উপলক্ষে সকালে নগরীতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়।