খুলনার সোনাডাঙ্গায় আ’লীগ কর্মীর জমি দখল করলো জামায়াত নেতা ওয়াদুদের শ্বশুর


286 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
খুলনার সোনাডাঙ্গায় আ’লীগ কর্মীর জমি দখল করলো জামায়াত নেতা ওয়াদুদের শ্বশুর
নভেম্বর ১০, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

খুলনা ব্যুরো :
খুলনার সোনাডাঙ্গা থানাধীন করিম নগরে জামায়াত নেতা শেখ আব্দুল ওয়াদুুদের শ্বশুর শাহাজাহান শরিফের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ কর্মী ঈমান আলী শেখের জমি অবৈধভাবে দখলের অভিযোগ ওঠেছে। এ কাজে পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করছে বিশেষ একটি রাজনৈতিক দলের( আওয়ামীলীগ) প্রভাবশালীরা। শাহাজাহান শরিফ এবং প্রভাবশালী ওই মহলটি পরস্পরের আত্মীয়। এ ঘটনায় আওয়ামীলীগ  কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
অভিযোগে জানা যায়, নগরীর সোনাডাঙ্গাস্থ করিমনগর মসজিদের সামনে বানিয়াখামার মৌজায় জেএল নং ৩ বর্তমান ডিপি খতিয়ান ৩৭১৫ ও ৭৫৫৫-এর ১২১২ ও ১২১৫ দাগের ৮ শতক জমির পৈত্রিক সূত্রে মালিক ১৭ নম্বর  ওয়ার্ডের আ’লীগ কর্মী ঈমান আলী শেখসহ তার ভাই- বোনেরা।  কেন্দ্রীয় জামায়াত নেতা, মংলা রামপাল থেকে জামায়াতের প্রার্থী  শেখ আব্দুল ওয়াদুুদের শ্বশুর শাহজাহান শরিফ ওই জমি দখলের চেষ্টা চালিয়ে আসছে।  তারই ধারাবহিকতায় বিভিন্ন সময়ে নামমাত্র টাকা দেওয়ার প্রস্তাবও দেন ঈমান আলী শেখকে। গত  সোমবার সকাল ৯টার পর শাহাজাহানের ভাড়া করা লোকজন ওই জমিতে বালু ও ইট দিয়ে স্থাপনা নির্মাণ শুরু করে। বিষয়টি সোনাডাঙ্গা থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তবে এ রিপোর্ট লেখা মঙ্গলবার পর্যন্ত জমিতে স্থাপনা নির্মাণ অব্যাহত ছিল।
এদিকে ঈমান আলী শেখ জমির দলিলসহ বিষয়টি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অবৈধ দখল বন্ধের জন্য লিখিত আবেদন করেন। আদালত গতকালই উক্ত আবেদনের প্রেক্ষিতে জমিদখল বিষয়ে সুস্পষ্ট তদন্ত প্রতিবেদন দিতে সদর ইউনিয়নের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা এবং আইন-শৃঙ্খলা ও শান্তি বজায় রাখতে সোনাডাঙ্গা মডেল থানা অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দেন।
এ বিষয়ে সোনাডাঙ্গা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মারুফ আহম্মদ জানান, আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। গতকাল রাতেই থানা থেকে একটি নোটিশ ঈমান আলী এবং শাহাজাহান শরিফকে দেওয়া হয়েছে বলেও তিনি নিশ্চিত করেন।
গতকাল মঙ্গলবার সকালে এ ব্যাপারে কেএমপি কমিশনার বরাবর ঈমান আলী শেখ সুষ্ঠু তদন্তর জন্য কেএমপি কমিশনার বরাবর আবেদন করেছেন।

এদিকে, সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি বুলু  বিশ্বাস জানান, আওয়ামীলীগের কর্মী  ঈমান আলী শেখের বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা করা হয়েছিল।  ঈমান আলী শেখ শালিশীর সিদ্ধান্ত মেনে না নেওয়ায় তা হয়নি।  অপরদিক ঈমান আলী শেখ জানান, প্রায় ৬০ লাখ টাকা সম্পত্তি মাত্র ৭ লাখ টাকা দিয়ে তারা কিনে নিতে চেয়েছিল। যে কারণে তিনি শালিশীর সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া হয়নি।   এদিকে জামায়াত নেতা  শেখ আব্দুল ওয়াদুুদের শ্বশুর শাহাজাহান শরিফ কর্তৃক আ’লীগ কর্মী ঈমান আলী শেখের জমি অবৈধভাবে দখলের ঘটনায় দলের সাধারণ নেতা-কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।#