খুলনায় জাপা’র সম্মেলন এরশাদ আসছে আজ


353 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
খুলনায় জাপা’র সম্মেলন এরশাদ আসছে আজ
সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ওয়াহেদ-উজ-জামান,খুলনা :
জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির খুলনা জেলা শাখার দ্বি-বাষিক সম্মেলন আজ সোমবার। মহানগরীর শহীদ হাদিস পার্কে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। দলের চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন।

এদিকে, দীর্ঘ প্রায় ৬ বছর পর সম্মেলনের আয়োজন এবং দলের প্রধানের উপস্থিতিকে কেন্দ্র করে বর্তমানে খুলনায় দলের তৃণমূল পর্যায়ে উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে। ঝিমিয়ে পড়া দল কিছুটা হলেও চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। পদ প্রত্যাশী ও তাদের অনুসারীদের মধ্যে বেশ তৎপরতা বেড়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত নতুন কমিটিতে কারা নেতৃত্ব দেবেন- সেটি নিয়ে দলের মধ্যে চলছে জোর আলোচনা।

দলীয় একাধিক সুত্র জানান, দলকে শক্ত ভিতের ওপর দাঁড় করাতে গত বছরের ১৫ আগষ্ট জেলা জাতীয় পার্টির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে ঢাকায় বৈঠক করেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ওই  বৈঠকে সংগঠনকে তৃণমূলে ঢেলে সাজাতে জেলা কমিটি বিলুপ্ত করে এরশাদের প্রেস সচীব সুনিল শুভ রায়কে আহবায়ক এবং শফিকুল ইসলাম মধুকে যুগ্ম-আহবায়ক করে ৭৩ সদস্যের সম্মেলন প্রস্তুত কমিটি ঘোষণা করা হয়। সে মোতাবেক আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কাংখিত এ সম্মেলন।

সুত্র জানায়, জেলা জাতীয় পার্টির আগামী দিনের নেতা নির্বাচন নিয়ে জল্পনা-কল্পনায় মেতে উঠেছে দলটির নেতা-কর্মীরা। কাকে দায়িত্ব দিলে দলকে শক্ত ভিতের ওপর দাঁড় করাতে পারবেন- সেটি নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। তবে সভাপতি পদে সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব শফিকুল ইসলাম মধু’র নাম শোনা যাচ্ছে। সাধারণ সম্পাদক পদে চার জনের নাম আলোচনায় রয়েছে। এরা হচ্ছের সাবেক এমপি মোক্তার হোসেন, রূপসা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসমাঈল হোসেন খান টিপু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম হাদীউজ্জামান ও পাইকগাছা উপজেলা সভাপতি মোস্তফা কামাল জাহাঙ্গীর।

দলের সূত্র জানান, সম্মেলনকে ঘিরে বেশ চাঙ্গা হয়ে উঠেছে জেলা জাতীয় পার্টির রাজনীতি। সংগঠনটির তৃণমূলে এক ধরণের উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে। পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদকে বরণ করতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। সম্মেলন সফল করতে ৩১ টি উপ-কমিটি কাজ করছে। জেলার শেষ সীমানা থেকে শহীদ হাদিস পার্ক পর্যন্ত রং-বে রংয়ের তোরণ নির্মাণ,আলোকসজ্জা, পোষ্টারিং ও প্যানা সাইন দিয়ে সাজানো হয়েছে খুলনা মহানগরীকে। হাদিস পার্কে মঞ্চ তৈরীর কাজও শেষ হয়েছে। সম্মেলনে ৫৪৪ জন কাউন্সিলর এবং ৫ হাজার ডেলিকেট উপস্থিত থাকবেন।

এ ব্যাপারে দলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব শফিকুল ইসলাম মধু বলেন, ইতিমধ্যেই সম্মেলনের সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। সম্মেলনে দলীয় প্রধানের উপস্থিতি নেতা-কর্মীদের আরও উজ্জীবিত করছে।