খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুজ্জামান মনি বরখাস্ত


823 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুজ্জামান মনি বরখাস্ত
নভেম্বর ২, ২০১৫ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

খুলনা প্রতিনিধি :
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনিকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের উপ-সচীব মো. আব্দুর রউফ মিয়া স্বাক্ষরিত এক ফ্যাক্স বার্তায় তাকে বরখাস্ত করা হয়। তার বিরুদ্ধে খুলনা থানার দু’টি মামলার অভিযোগ পত্র আদালতে গৃহিত হওয়ায় তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে ফ্যাক্স বার্তায় উল্লেখ করা হয়েছে। নির্বাচিত হওয়ার পর দু’ বছর এক মাস আট দিনের মাথায় তিনি বরখাস্ত হলেন।

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা গোকুল কৃষ্ম ঘোষ এ ফ্যাক্স বার্তার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ফ্যাক্স বার্তায় উল্লেখ করা হয়, কেসিসি মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনি’র নামে খুলনা সদর থানায় ২০১৩ সালের ২৬ নভেম্বর ফৌজদারী মামলা দায়ের হয়। যার নম্বর-১৯। চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল ওই মামলার অভিযোগ পত্র আদালতে দাখিল করা হয়। যার নম্বর-১০৪ ও ১০৪ (ক)। ২০১৪ সালের ৪ জানুয়ারি খুলনা সদর থানায় তার নামে অপর একটি ফৌজদারী মামলা দায়ের হয়। যার নম্বর-৫। চলতি বছরের ৩১ মে ওই মামলার অভিযোগ পত্র আদালতে দাখিল করা হয়। যার নম্বর-১৫৯। স্থানীয় সরকার আইন-২০০৯ (২০০৯-এর ৬০ নং আইন) এর ধারা-১২ এর উপ-ধারা (১) মোতাবেক সিটি কর্পোরেশন মেয়রের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলার অভিযোগ পত্র আদালত কর্তৃক গৃহিত হলে তাকে সাময়িক বরখাস্তের বিধান রয়েছে। ওই একই আইনের ১২ এর উপ-ধারা (১) এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতির পক্ষে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের উপ-সচীব মো. আব্দুর রউফ মিয়া এ ফ্যাক্স বার্তায় স্বাক্ষর করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৫ জুন অনুষ্ঠিত খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনি বিজয়ী হন। নানা নাটকীয়তার পর ওই বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর তিনি মেয়রের দায়িত্ব গ্রহন করেন। সরকার বিরোধী আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে নগর বিএনপি সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু ও মেয়র মনিরুজ্জামান মনিসহ বিএনপি’র একাধিক নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে উল্লিখিত দু’টি মামলায় চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ।

এদিকে মেয়র মনি’র বরখাস্তের খবর পেয়ে সোমবার বিকেলে কেসিসি ভবনে মেয়রের দপ্তরে গিয়ে মেয়রকে পাওয়া যায়নি। তিনি দুপুর সাড়ে ৩টায় অফিসে প্রবেশ করে আধা ঘন্টা পর ৪টায় একটি অনুষ্ঠানে বের হয়ে যান। এরপর বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে পূণরায় অফিসে প্রবেশ করে বরখাস্তের খবর পেয়ে ৫ মিনিট পর ৫টা ২৫ মিনিটে অফিস ত্যাগ করেন বলে তার দপ্তর সূত্রে জানা গেছে।