গরুর মাংস বহনের অভিযোগে দুই নারীকে মারধরের অভিযোগ ভারতে


361 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
গরুর মাংস বহনের অভিযোগে দুই নারীকে মারধরের অভিযোগ ভারতে
জুলাই ২৭, ২০১৬ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক :
গরুর মাংস বহন করার অভিযোগে এবার দুই নারীকে নিচে ফেলে থাপ্পড়, লাথি, গালি দেওয়ার অভিযোগ উঠল একদল জনতার বিরুদ্ধে। আর সামনে দাঁড়িয়ে পুরো ঘটনা চাক্ষুস করলেও ওই দুই নারীকে বাঁচানোর কোন চেষ্টাই করলেন না পুলিশ সদ্যসরা। গত মঙ্গলবার এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দূরে মান্ডসৌর রেলস্টেশনে।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বিক্রি করার উদ্দেশ্যে ওই দুই নারী প্রচুর পরিমাণে গরুর মাংস বহন করছিলেন বলে তাদের কাছে গোপন সূত্রে খবর ছিল। সেই মতো তাদের খোঁজে পুলিশ স্টেশনে অভিযান চালাচ্ছিল এবং তাদেরকে আটক করা হয়েছিল। সেসময়ই কয়েকজন উন্মত্ত জনতা এসে পুলিশের কাছ থেকে একপ্রকার ছিনিয়ে নিয়ে ওই দুই নারীকে পেটাতে থাকে বলে অভিযোগ। এসময় কয়েকজন দর্শক তাদের মোবাইলে ওই মারধরের ভিডিও মোবাইল ফোনে রেকর্ড করলেও তারাও থামানোর চেষ্টা করেনি।

ওই ভিডিওতে মারধরের মধ্যেই ‘গো মাতা কি জয়’ বলে স্লোগান দিতে শোনা যায়। যতক্ষণ না পর্যন্ত ওই দুই নিচে পড়ে গিয়েছিল তার আগে পর্যন্ত দুই নারীকেই সমানে থাপ্পড় ও ঘুষি মারছিল উন্মত্ত জনতা। রেল স্টেশনে প্রকাশ্যেই প্রায় আধা ঘণ্টা ধরে চলে এই নির্যাতন। কিন্তু পুলিশ গোটা ঘটনার সাক্ষী থাকলেও জনতার হাত থেকে দুই নারীকে বাঁচানোর কোন চেষ্টাই করেনি বলে অভিযোগ।

পুলিশ সূত্রে খবর ওই দুই নারীর কাছ থেকে ৩০ কিলোগ্রাম গোমাংস উদ্ধার করা হয়েছে। যদিও প্রাথমিক তদন্তে স্থানীয় পশু চিকিৎসক জানিয়েছেন গরু নয়, ওটা মহিষের মাংস ছিল। তবে তাদের কাছে মাংস বিক্রি করার কোন অনুমতি না থাকায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হতে পারে বলে খবর। অন্যদিকে ওই দুই নারীকে মারধরের ঘটনা অভিযুক্তদের এবং পুলিশের বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

বুধবার মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ভুপেন্দ্র সিং জানান, ‘কোন ব্যক্তিই নিজের হাতে আইন তুলে নিতে পারেন না। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী তদন্ত করা হবে।’

এই ঘটনায় বুধবার ভারতের সংসদে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের এই কার্যকলাপের বিরুদ্ধে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি প্রতিবাদ জানায়। ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়ে রাজ্যসভার ওয়েলে নেমে এসে বিক্ষোভ দেখান বহুজন সমাজ পার্টি (বিএসপি) সংসদ সদস্য মায়াবতী।

প্রসঙ্গত, গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই গোমাংস সম্পর্কিত বিষয়কে কেন্দ্র করে ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ভারতের রাজনীতি। কয়েকদিন আগেই মোদির রাজ্য গুজরাটেই মরা গরুর চামড়া নেওয়ার অভিযোগে বেধড়ক মারধর করা হয় চার দলিত যুবককে। শুধু তাই নয় তাদেরকে নগ্ন করে একটি গাড়ির সঙ্গে রশি বেঁধে প্রায় এককিলোমিটার টেনে নিয়ে যাওয়া হয় বলেও অভিযোগ ওঠে গোরক্ষা কমিটির বিরুদ্ধে।