গেজেট প্রকাশে ‘শেষবারের মতো’ সময় পেল সরকার


365 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
গেজেট প্রকাশে ‘শেষবারের মতো’ সময় পেল সরকার
ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৭ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা ও আচরণ-সংক্রান্ত বিধিমালার গেজেট প্রকাশে ‘শেষবারের মতো’ সরকারকে দুই সপ্তাহের সময় দিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত।

গেজেট প্রকাশে বারবার সময় নেওয়ার বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের কাছে ব্যাখ্যা দেওয়ার পর সোমবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের বেঞ্চ সরকারকে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে গেজেট প্রকাশের জন্য সময় বেঁধে দেন।

অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা ও আচরণ-সংক্রান্ত বিধিমালার গেজেট প্রকাশে বারবার সময় নেওয়ার ব্যাখ্যা রোববার অ্যাটর্নি জেনারেলকে নির্দেশ দেন সর্বোচ্চ আদালত। নির্দেশনা অনুযায়ী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সোমবার লিখিত ব্যাখ্যা দেন। পরে এই গেজেট প্রকাশে রোববার অ্যাটর্নি জেনারেলের দুই সপ্তাহ সময় চেয়ে করা আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত।

অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা ও আচরণ-সংক্রান্ত বিধিমালার গেজেট প্রকাশে বারবার সময় নেওয়ার ব্যাখ্যা চেয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। এ বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে আজ সোমবার লিখিত ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে ৫ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপক্ষকে গেজেট প্রকাশের জন্য এক সপ্তাহ সময় দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ। এ ছাড়া বিভিন্ন সময় কয়েকবার রাষ্ট্রপক্ষকে গেজেট প্রকাশের জন্য সময় দেওয়া হয়েছিল। সময় দেওয়ার পরও সরকার গেজেট প্রকাশ না করায় গত বছরের ৮ ডিসেম্বর দুই সচিবকে তলবও করেছিলেন আপিল বিভাগ।

১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ সরকারের নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগকে পৃথক করা-সংক্রান্ত মাসদার হোসেন বনাম সরকার মামলার যুগান্তকারী রায় ঘোষণা করেন।

রায়ে আপিল বিভাগ বিসিএস (বিচার) ক্যাডারকে সংবিধান পরিপন্থী ও বাতিল ঘোষণা করা হয়। একই সঙ্গে জুডিসিয়াল সার্ভিসকে স্বতন্ত্র সার্ভিস ঘোষণা করে বিচার বিভাগকে নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা করার জন্য সরকারকে ১২ দফা নির্দেশ দেন সর্বোচ্চ আদালত। এরই ধারাবাহিকতায় ২০০৭ সালের ১ নভেম্বর নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা হয়ে বিচার বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয়। তবে আপিল বিভাগের রায়ের আলোকে অধস্তন আদালতের জন্য পৃথক শৃঙ্খলা ও আচরণ বিধিমালা এখনও প্রণীত হয়নি।

পরে ওই দুটি বিধিমালার পৃথক খসড়া তৈরি করে আপিল বিভাগে জমা দেওয়ার জন্য সরকারকে নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত বছর দুটি খসড়া তৈরি করে আদালতে দাখিলও করে সরকার। কিন্তু খসড়া দুটি কিছুটা সংশোধন করে সরকারকে গেজেট প্রকাশের জন্য কয়েক দফা সময় দেওয়া হলেও সেই গেজেট এখনও প্রকাশ হয়নি। আর এ নিয়েই সরকার ও বিচার বিভাগের মধ্যে টানাপড়েন চলছে।