গোপালগঞ্জে জাতীয় শোক দিবসে জাতির পিতার সামাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন


642 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
গোপালগঞ্জে জাতীয় শোক দিবসে জাতির পিতার সামাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন
আগস্ট ১৫, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির, গোপালগঞ্জ থেকে ফিরে :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১তম শাহাদাৎ বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিসৌধে সোমবার পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণের পর এই মহান নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের ১৯৭৫ সালের এই দিনে কিছু বিপদগামী সৈনিক নৃশঃস ভাবে হত্যা করে।

এসময় বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল বাঙালি জাতি রাষ্ট্রের স্থপতিকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। তারপর বিউগলের করুন সুর বাজানো হয়। এ সময় বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে শেখ রেহানা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী এরপর বঙ্গবন্ধু, বেগম মুজিব, বঙ্গবন্ধুর পুত্র ও পুত্রবধুসহ ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাতে অংশ গ্রহণ করেন। মোনাজাতে দেশ-জাতি এবং সমগ্র মুসলিম উন্মাহর শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর কন্যা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার নেত্রী সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এবং বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এবং কাজী জাফরউল্লাহ, জনপ্রশাসন মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, এলজিআরডি ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, স্বরাষ্টমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরিফ, সাবেক চীফ হুইপ আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ, মহিলা ও শিশু বিষযক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট তারানা হালিম, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাছিম এবং বিএম মোজাম্মেল, মুহম্মদ ফারুক খান এমপি, শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি উপস্থিত ছিলেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী পরিষদ সচিব মো.শফিউল আলম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. আবুল কালাম আজাদ এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

পরে শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে দলের কেন্দ্রিয় নেতৃবৃন্দ এবং কর্মীদের নিয়ে জাতির পিতার সমাধিতে পৃথক শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণ করেন। এরপর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও দলের নেতা-কর্মীরা জাতির পিতাকে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান। প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী পরিষদ সদস্যবৃন্দ এবং আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণ পর্ব শেষে মন্ত্রি পরিষদ বিভাগ এবং গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর সমাধিচত্বরে আয়োজিত মিলাদ মাহফিলে অংশগ্রহণ করেন।

াংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে করে তিনি জাতির পিতার জন্মস্থান এবং তাঁর সমাধিস্থল গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া পৌঁছান। প্রধানমন্ত্রীর দুপুরেই রাজধানীতে ফিরে জান।
###

বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন

এস.এম.সাইফুল ইসলাম কবির,গোপালগঞ্জ থেকে ফিরে:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সোমবার গোপালগঞ্জে টুঙ্গিপাড়ার সমাধিসৌধে শোকার্ত মানুষের ঢল নামে। স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সকাল থেকেই আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সের সামনের রাস্তায় ও আশে পাশের এলাকায় জমায়েত হতে থাকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রদ্ধা নিবেদনের পরে ১৪ দল, আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।