গোপালগঞ্জ সংবাদ ॥ ভাসমান সবজি চাষে সফলতা পাচ্ছে কৃষকরা


620 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
গোপালগঞ্জ সংবাদ ॥ ভাসমান সবজি চাষে সফলতা পাচ্ছে কৃষকরা
জানুয়ারি ১১, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস.এম. সাথী ইসলাম, গোপালগঞ্জ  :
গোপালগঞ্জে ভাসমান সব্জি ও মসলা চাষে সফলতা পাচ্ছে কৃষকরা প্রকল্পের আওতায় গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি অফিসের সহায়তা নিয়ে ভাসমান ধাপের উপর মসলা ও সব্জি চাষ করে সফল হয়েছেন সদর উপজেলার কৃষকেরা। উৎপাদিত সব্জি বাজারে বিক্রি করে ইতিমধ্যে অর্থ উপার্জন করা শুরু করেছেন চাষীরা।
গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: মিজানুর রহমান জানিয়েছেন বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাষ্ট, বন ও পরিবেশ মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে এবং গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি অফিসের সহায়তায় এ প্রদর্শনী প্রকল্পের কাজে কৃষক পর্যায়ে ভাসমান বেড স্থাপন করা হচ্ছে মুলত কচুরীপানা দিয়ে ধাপ বানিয়ে। সেই ধাপের উপর লাল শাক, পুই শাক, ডাটা শাক, গিমা কলমি, ঢেড়শ, সীম, লতিরাজ কচু, লাউ, হলুদ প্রভৃতি চাষ করা হচ্ছে।
প্রতিটি বেড বা ধাপ লম্বায় ২০ মিটার প্রস্থ এবং পুরু সোয়া মিটার করে তৈরী করা হয়েছে। ৩টি বেড বা ধাপ মিলে একটি প্রকল্প হিসাবে সদর উপজেলায় মোট ৪৫টি প্রকল্পে চাষাবাদ কাজ চলছে। প্রতিটি প্রকল্পের ব্যায় ধরা হয়েছে ৮ হাজার টাকা। কৃষি কর্মকর্তারা চাষাবাদের জন্য প্রয়োজনীয় উপকরন ক্রয় করে দিচ্ছে চাষীদের। সদর উপজেলার ঘোনাপাড়া, গোবরা, চাপাইল পাড়া এবং চেচানিয়া কান্দি এলাকায় এ ধরনের ভাসমান বেড তৈরী করে সব্জি ও মসলার প্রদশর্নী চাষ এলাকাবাসীর মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। ভুমিহীন বা সহায় সম্বলহীন মানুষেরা পেয়েছে বেঁচে থাকার নতুন প্রেরনা।
গোবরা ইউনিয়নের বাবু রাম বিশ্বাস জানিয়েছেন ধাপের উপর সব্জি বা মসলা চাষ করে যে অর্থ উপার্জন করে সাবলম্বী হওয়া যায় তা তার জানা ছিলো না। কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা তাকে অর্থ উপার্জনের জন্য এ ধরনের উপায় বাতলে দেয়ায় সে কৃতজ্ঞ।
গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পার্বতী বৈরাগী জানিয়েছেন প্রকল্পের আওতায় ভাসমান বেডে সব্জি ও মসলা চাষ সার্বিক ভাবে সফল হওয়ায় বেকার মানুষেরা এখন এগিয়ে আসছে এই পদ্ধতিতে চাষ করে অর্থ উপার্জন করতে।
###

গোপালগঞ্জে বশেমুরবিপ্রবি’র অফিসার্স এসোসিয়েশনের নির্বাচন সম্পন্ন

Gopalgonj Photo-2
এস.এম. সাথী ইসলাম, গোপালগঞ্জ অফিস  : গোপাললগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স এসোসিয়েশনের কমিটি গঠিত হয়েছে। কমিটি গঠন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হয় নির্বাচন। নির্বাচনে জনসংযোগ দপ্তরের সেকশন অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম (হিরা) সভাপতি এবং রেজিস্ট্রার দপ্তরের সেকশন অফিসার ফারজানা ইসলাম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।
এছাড়া অফিসার্স এসোসিয়েশনের নির্বাচিত অন্যান্য সদস্যরা হলেন সহ-সভাপতি-১ ডেপুটি লাইব্রেরিয়ান মোঃ নাছিরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি-২ সহকারী রেজিস্ট্রার মোঃ মোরাদ হোসেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক-১ সহকারী প্রোগ্রামার বি এম আরিফুল ইসলাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক-২ হিসাব কর্মকর্তা ওয়ালিদ মিয়া, কোষাধ্যক্ষ সহকারী বাজেট অফিসার ফয়সাল আহমেদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জনসংযোগ কর্মকর্তা মোঃ মাহবুবুল আলম, দপ্তর সম্পাদক প্রশাসনিক কর্মকর্তা আসলাম হোসেন, ক্রীড়া সম্পাদক ব্রাদার রাজীব কুমার বাছাড়, নির্বাহী সদস্য বৃন্দ: পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) ইঞ্জিনিয়ার এস এম এস্কেন্দার আলী, ভাইস-চ্যান্সেলরের একান্ত সচিব মোঃ তহিদুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক তুহিন মাহমুদ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ ওবায়দুর রহমান, নার্স যুথি আক্তার। বুুধবার অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের কক্ষে অফিসার্স এসোসিয়েশনের নির্বাচন সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন হয়। কর্মকর্তারা গোপন ব্যালটের মাধ্যমে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। উক্ত নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) ইঞ্জিনিয়ার এস এম এস্কেন্দার আলী।