ঘুমের মধ্যে দেয়াল চাপায় প্রাণ গেল বাবা-মা ও দুই শিশু সন্তানের


173 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ঘুমের মধ্যে দেয়াল চাপায় প্রাণ গেল বাবা-মা ও দুই শিশু সন্তানের
সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ঘরের দেয়াল চাপা পড়ে একই পরিবারের ৪ সদস্য নিহত হয়েছেন। রোববার ভোরে উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের ঝাড়পাড়া গ্রামে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- গৃহকর্তা স্বপন সরকার (৩৫), তার স্ত্রী সরাজানা বেগম (৩০), শিশুপুত্র হোসাইন (৯) ও হাসিবুল (৬)। হোসাইন একটি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র।

এদিকে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহনাজ মিথুন মুন্নীসহ পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, ভ্যানচালক স্বপনের বাড়ী নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলায়। তার বাবার নাম আজাদ আলী। তিনি পার্বতীপুরের ঝাড়পাড়ায় বিয়ে করে শ্বশুর বাড়িতেই বসবাস করতেন। তার শ্বশুর আব্দুল ছাহেদ জামাইকে বাড়ি ছেড়ে দিয়ে পার্শ্ববর্তী ফুলবাড়ীতে বসবাবাস করতেন। প্রতিদিনের মতো শনিবার রাতে স্বপন তার স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে ঘরে খাটের ওপর ঘুমিয়ে পড়েন। ঘুমের মধ্যে ঘরের দেয়াল ভেঙে চাপা পড়লে পরিবারের সবার মৃত্যু হয়।

প্রতিবেশি হাফিজা খাতুন জানান, গত কয়েক দিন ধরে প্রবল বর্ষণ চলছে পার্বতীপুরে। রাতে ঘর ভেঙে দেয়াল চাপা পড়ার কথা কেউ জানতো না। সকালে ওই বাড়ির ২টি ঘরের দেয়াল ভাঙা দেখে আমি এগিয়ে যাই। গিয়ে দেখি ৪ জনই মাটির নীচে চাপা পড়ে আছে। চিৎকার দিলে আশপাশের মানুষ ছুটে এসে তাদের মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে। পরিবারের সবাই একই খাটে পাশাপাশি ঘুমিয়ে ছিল।

ইউপি চেয়ারম্যান মোফাখখারুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি জানার পরপরই তিনি ছুটে এসেছেন। মৃতদের দাফনের প্রস্ততি চলছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহনাজ মিথুন মুন্নী জানান, লাশ দাফনের জন্য জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ২০ হাজার ও উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে।