ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ : সাতক্ষীরায় ভারি বৃষ্টিপাত ও ঝড়ো হাওয়া


283 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ : সাতক্ষীরায় ভারি বৃষ্টিপাত ও ঝড়ো হাওয়া
নভেম্বর ৯, ২০১৯ দুুর্যোগ ফটো গ্যালারি শ্যামনগর
Print Friendly, PDF & Email

বিজয় মন্ডল/শাহিদুর রহমান ::

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সাতক্ষীরায় শুক্রবার ভোর থেকে বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়া বইতে শুরু করেছে। শনিবার বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেখানে কখনও মাঝারি ও আবার কখনো ভারি বৃষ্টি হচ্ছে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসেনের পক্ষ থেকে ১০নং সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলায় স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিদের ছুটি বাতিল করে স্ব-স্ব এলাকায় অবস্থান করতে বলা হয়েছে। হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিক সার্বক্ষণিক খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উপকূলীয় এলাকার মানুষদেরকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নেওয়ার জন্য জেলা ও উপজেলা প্রশাসন মনিটরিং ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।

তিনি জানান, দুর্যোগের সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি কমাতে ও মানুষের জানমালের নিরাপত্তায় ২৭০টি আশ্রয়কেন্দ্র খুলে দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ১২শ স্কুল-কলেজকে বিকল্প আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রত্যেক ইউনিয়নে মেডিকেল টিম প্রস্তুতকরণ, পর্যাপ্ত শুকনো খাবার ও খাওয়ার পানি মজুদ রাখা, দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে উদ্ধার কার্যক্রম চালানোর জন্য ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স ও স্বেচ্ছাসেবক দল প্রস্তুত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ,শ্যামনগরের গাবুরা ইউনিয়নের উপকূলীয় দ্বীপে ৩০ হাজার মানুষ বসবাস করে।তাদেরকে কোষ্টগার্ড ও বিজিবির সহায়তায় নৌকা যোগে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে ।