চট্টগ্রামে সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ, রাতে মিলল লাশ


476 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
চট্টগ্রামে সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ, রাতে মিলল লাশ
অক্টোবর ১৩, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
চট্টগ্রামে বাসা থেকে বের হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর রিপেন সিংহ নামের এক সরকারি কর্মচারীর লাশ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাতে পতেঙ্গা থানার চরপাড়া বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শনিবার লাশ শনাক্ত করে রিপেন সিংহের পরিবার।

রিপেন নগরের কোতোয়ালি থানার আসকারদীঘির পশ্চিম পাড়ের অফিসার্স লেনের ক্ষুদিরাম সিংহের ছেলে। তিনি চট্টগ্রাম কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট কার্যালয়ে ক্যাশিয়ার পদে কর্মরত ছিলেন। এটিকে পরিকল্পিত হত্যা বলে দাবি করছে তার পরিবার।

পতেঙ্গা থানার ওসি উৎপল বড়ূয়া জানান, শুক্রবার রাতে খবর আসে, বঙ্গোপসাগরের বেড়িবাঁধের ব্লকের সঙ্গে একটি লাশ আটকে আছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় লাশটি উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে লাশটি ভেসে এসেছে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। পাথরের সঙ্গে ঘষা লাগায় মুখটি রক্তাক্ত ছিল। এ ছাড়া দেহের আর কোথাও কোনো আঘাতের চিহ্ন ছিল না। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রিপেন সিংহের বাবা ক্ষুদিরাম সিংহ বলেন, শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে বাসা থেকে বের হয় রিপেন। বাসায় ফিরতে একটু দেরি হবে বলে জানিয়েছিল। দুপুরের পরও বাসায় না ফেরায় তার মোবাইলে কল করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। কোনো সন্ধান না পাওয়ায় সন্ধ্যায় কোতোয়ালি থানায় জিডি করা হয়।

রাত ১২টার দিকে কোতোয়ালি থানার ওসি জানান, পতেঙ্গায় একটি মরদেহ পাওয়া গেছে। পরে চমেক হাসপাতালের মর্গে গিয়ে আমার ছেলের লাশ শনাক্ত করি। আমার ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তিনি দাবি করেন, নগরের হাজারী লেনের মিষ্টিঘর গলির শুভ চৌধুরী নামে একজন বন্ধু আছে রিপেনের। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সবকিছু জানা যাবে।

পতেঙ্গা থানার ওসি বলেন, এখনও রিপেনের পরিবারের পক্ষ থেকে কারও বিষয়ে কোনো অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ করলে আমরা তদন্ত করে দেখব।