চাঁদখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কান্ড!


528 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
চাঁদখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কান্ড!
মার্চ ১১, ২০১৭ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস, এম, আলাউদ্দিন সোহাগ ::
সারা দেশের ন্যায় স্টুডেন্ট কাউন্সিলর নির্বাচনে পাইকগাছা উপজেলার চাঁদখালী ইউনিয়নের ৩৫নং চাঁদখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শংকর প্রসাদ রায় তার বিদ্যালয়ে দরিদ্র পরিবারের সন্তান ছাত্র আশিক ১৩৪ ভোট পেয়ে ১ম স্থান অর্জন করলেও তাকে বাদ দিয়ে ৬৫ ভোট প্রাপ্ত ধনীর দুলাল সানিকে প্রধান কাউন্সিলর করার চেষ্টা চালিয়ে ব্যার্থ হয়েছে।

গত ১ মার্চ’১৭ সরকারি নিয়ম অনুযায়ী সারা দেশের ন্যায় উক্ত বিদ্যালয়েও স্টুডেন্ট কাউন্সিলর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্র আশিক বিল্লাহ সর্বমোট ১৬৬ ভোটের মধ্যে ১৩৪ ভোট পেয়ে ১ম স্থান লাভ করে। এরপর আছিয়া (১১৪), নাইমা খাতুন (১০০), মোনিয়া (৯৫), মুজাহিদুল (৯২), রাকিব (৮৫) ও সানি (৬৫) প্রাপ্ত হন। এরপর নানাবিধ অনিয়মে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক দারিদ্র আশিককে প্রধান কাউন্সিলর হিসাবে মেনে নিতে না পেরে নির্বাচনী ফলাফল স্থগিত রাখেন। পরবর্তীতে ০৭ মার্চ’১৭ তারিখ প্রধান শিক্ষক অতি সংগোপনে নির্বাচিত ৭ স্টুডেন্ট কাউন্সিলরকে ডেকে লটারীর মাধ্যমে সানিকে নির্বাচিত করার চেষ্টা করে। এ বিষয়টি জানাজানি হলে ছাত্র/ছাত্রীদের অভিভাবক বিদ্যালয় যায়। অতঃপর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ১ম স্থান অর্জনকারী আশিক এর পিতাকে ল্যাঞ্চিত করেন। তখন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ মুনছুর আলী গাজী খবর পেয়ে বিদ্যালয়ে আসেন এবং তিনি প্রধান শিক্ষক ও তার সহযোগীদের অবৈধ কর্মকান্ড প্রতিহত করতে ব্যার্থ হয়ে তিনি পদত্যাগের হুমকি দেন। এ বিষয়ে কমিটির সভাপতি জানান এ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ১৭ বছরের অধিক সময় ধরে স্বামী-স্ত্রী শিক্ষাকতা করে আসছেন। সে কারণ তিনি যাহা খুশি তাই করছেন। ঘটনাস্থলে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, সদস্যবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা যথাযথভাবে স্টুডেন্ট কাউন্সিলর নির্বাচন সহ দূর্ণীতিবাজ প্রধান শিক্ষকের দ্রুত অপসরণ চেয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করবেন বলে জানান। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা চলছে।