চিকিৎসা নিতে তালা প্রাণি সম্পদ অফিসে অবস্থান নিয়েছে অসুস্থ কালোমুখো এক হনুমান !


827 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
চিকিৎসা নিতে তালা প্রাণি সম্পদ অফিসে অবস্থান নিয়েছে  অসুস্থ কালোমুখো এক হনুমান !
নভেম্বর ৬, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

বি. এম. জুলফিকার রায়হান, তালা
দূর্ঘটনার শিকার হয়ে গুরুতর আহত একটি হনুমান চিকিৎসা নেওয়ার জন্য ২দিন ধরে তালা প্রাণি সম্পদ অফিসে অবস্থান করছে। প্রাণি সম্পদ অফিসের খোলা যায়গায় গুরুতর আহত হনুমানটি অনাহারে ও অন্য প্রাণিদের আক্রমনের শিকার হবার আশংকার মধ্যে রয়েছে। এখান থেকে হনুমানটিকে দ্রুত উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসা ও খাদ্য প্রদান জরুরী হয়ে পড়েছে। অন্যথায় হনুমানটির জীবন বিপন্ন হতে পারে।

সূত্রে জানাগেছে, যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলায় এখনও বিলুপ্তি প্রায় কালোমুখো হনুমান বসবাস করে। খাদ্যের সন্ধ্যানে অনেক হনুমান কেশবপুর থেকে বিভিন্ন সময় তালাসহ বিভিন্ন এলাকায় চলে আসে। এমনি একটি হনুমান বৃহস্পতিবার তালা উপজেলার সুভাষিণী বাজারে চলে আসে।

তালার তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারন সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার সকালে বিপথগামী একটি হনুমান সুভাষিণী এলাকায় এসে বিভিন্ন স্থানে ঘোরাঘুরি করে। এক পর্যায়ে হনুমানটি বাজারের পার্শ্ববর্তি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. কামরুজ্জামানের বাড়ির পাশে একটি গাছে অবস্থান নেয়। এখান থেকে হনুমানটি মো. কামরুজ্জামানের বাড়ির দ্বিতীয় তলার জানালায় লাগানো থাই গ্লাসে নিজের প্রতিচ্ছবি দেখে ওই গ্লাসের উপর লাফিয়ে পড়ে। এতে গ্লাসটি ভেঙ্গে যায় এবং ভাঙ্গা গ্লাসের আঘাতে হনুমানটির তলপেট চিরে আহত হয়। পরে আ.লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম গুরুতর আহত হনুমানটি উদ্ধার করে একটি ভ্যানযোগে তালা প্রাণি সম্পদ অফিসে পাঠিয়ে দেন।

রফিকুল ইসলাম আরও জানান, হনুমানটি উদ্ধার থেকে শুরু করে ভ্যানযোগে তালায় পাঠানো পর্যন্ত পুরো সময় পশু সূলভ আচরন না করে অকল্পনীয় সহযোগীতা এবং মানুষের মত স্বাভাবিক আচরন করেছে।

তালা উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসের ভ্যাটোরিনারী সার্জন ডা. মো. শাহিনুর ইসলাম জানান, গ্লাসের আঘাতে ৫/৬ বছর বয়সের পুরুষ হনুমানটির পেট প্রায় ১০ ইঞ্চি মত কেটে যায়। বৃহস্পতিবার হনুমানের পেটে সেলাইসহ চিকিৎসা করা হয়। তিনি আরও বলেন, এখানে হনুমানটির উন্নত চিকিৎসা, খাদ্য প্রদান ও থাকার ভাল ব্যবস্থা নেই। এছাড়া এখানে হনুমানটিকে নিয়ন্ত্রনে রেখে চিকিৎসা করা অনিশ্চিত। যে জন্য খুলনার বন্য প্রাণি সংরক্ষন কর্তৃপক্ষ এটাকে উদ্ধার করে নিয়ে চিকিৎসা করালে প্রাণিটির জন্য ভাল হবে। বর্তমানে ডা. শাহিনুর ইসলাম নিজ উদ্যোগে হনুমানটির খাদ্য ও থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

ঘটনার সংবাদ পেয়ে তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার নিজ উদ্যোগে শুক্রবার হনুমানটিকে খাদ্য দিয়েছেন ও চিকিৎসার খোজ নিয়েছেন।

ডা. শাহিনুর ইসলাম জানান, দুই দিনের চিকিৎসায় হনুমানটির অবস্থার বেশ উন্নতি হয়েছে। চিকিৎসা শেষ করতে ১৫দিন লাগবে। বিষয়টি জানানোর পর হনুমানটি দুইদিন ধরে প্রাণি সম্পদ অফিসেই অবস্থান করছে। চিকিৎসা শেষ না হওয়া পর্যন্ত এখান থেকে হনুমানটি যাবে বলে- মনে হচ্ছে না। তবে, ১৫ দিন ধরে হনুমানটির প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেবার সক্ষমতা থাকলেও এই কয়দিন প্রাণিটির থাকা, খাদ্য প্রদান ও চিকিৎসা শেষে অবমুক্ত করার তেমন সুযোগ অত্র অফিসে নেই। এজন্য তিনি বন্য প্রাণি সংরক্ষন অফিসের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার ও নির্বাহী অফিসার মো. মাহবুবুর রহমান জানান, প্রাণিটি টানা দুইদিন তালা প্রাণি সম্পদ অফিসে অবস্থান করছে। প্রাণিটির প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিশ্চিত ও সুস্থ্য হবার পর যথাযথ স্থানে ছেড়ে দেবার জন্য পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।