চুকনগরে ৬০টি পরিবার পানি বন্দী


331 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
চুকনগরে ৬০টি পরিবার পানি বন্দী
মে ২০, ২০১৮ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গাজী আব্দুল কুদ্দুস ::
চুকনগরে এক প্রভাবশালী ব্যক্তি পানি সরবরাহের ড্রেন বন্ধ করে দেওয়ায় কাউন্সিল রোডের পূর্ব পাশে অবস্থিত পরিচ্ছন্ন আবাসিক এলাকা নামে খ্যাত সামান্য বৃষ্টিতে ৫০/৬০টি পরিবার পানি বন্দী হয়ে পড়েছে। ২০/২৫দিন ধরে এলাকাটি পানি বন্দী থাকায় পানি পচে দূর্গন্ধের সৃষ্টি হয়েছে।
সরজমিনে গিয়ে জানাযায়, দীর্ঘদিন ধরে জীবন নন্দী নামে এক ব্যক্তির জমির পাশ দিয়ে ঐ এলাকার পানি গিয়ে কাউন্সিল রোডের ড্রেনে পড়ত। কাউন্সিল রোডের ড্রেন দিয়ে পানি সরাসরি ভদ্রা নদীতে পড়ত। ফলে এরপূর্বে কোনদিন জলাবন্ধতার সৃষ্টি হয়নি। কিন্তু প্রায় ২মাস আগে জীবন নন্দী নামে এক ব্যক্তি আবাসিক এলাকার পানি সরবরাহের ড্রেনটি মাটি ভরাট করে পানি সরবরাহ বন্দ করে দিয়েছে। ফলে ঐ এলাকায় বসবারকারী প্রায় ৫০/৬০টি পরিবার সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি বন্দী হয়ে পড়ে। গত ২ সপ্তাহে বৃষ্টিপাত একটু বেশি মাত্রায় হওয়ায় আবাসিক এলাকার রাস্তাঘাট ও বাড়ির উঠানে পানি আটকা পড়ে দূর্গন্ধের সৃষ্টি হয়েছে। দূর্গন্ধের কারণে ঐ এলাকায় বসবাস করা অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। মশা মাছির উপদ্রব বৃদ্ধি পেয়েছে। রোগ বালাই বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতোমধ্যে খালেদা বেগম সহ কয়েকজন অসুস্থ হয়ে পড়েছে। অনেক নিরুপায় হয়ে কষ্টের মধ্যে বসবাস করছে। আবার অনেকে ঘরবাড়ি ছেড়ে অন্যাত্র আশ্রয় নিয়েছে। তাই এলাকাবাসীর দাবী অনতিবিলম্বে আবাসিক এলাকাটির পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করা হোক তা না হলে অল্প দিনের মধ্যে বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়বে। এ ব্যাপারে আবাসিক এলাকার বাসিন্দা অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম বলেন,জীবন নন্দী ২মাস আগে যখন মাটি ফেলে ড্রেনটি বন্দ করে নিচ্ছিলেন তখন আমরা কয়েকটি পরিবার মিলে তার কাছে গিয়ে ড্রেনটি বন্দ না করার জন্য অনুরোধ করেছি। কিন্তু তিনি আমাদের কথায় কর্ণপাত করেনি। তার খামখেয়ালীপনা মনোভাবের কারণে বর্তমানে পানি বন্দী হয়ে আমাদের মানববেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে।
##