চুমুতে ক্যান্সারের ঝুঁকি!


467 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
চুমুতে ক্যান্সারের ঝুঁকি!
আগস্ট ১, ২০১৫ ফটো গ্যালারি স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক
ধূমপানের চেয়ে চুমু বেশি ক্ষতিকর! অবাক করার মতো কথা হলেও একদল গবেষক এমনটাই দাবি করছেন। তারা এও বলছেন, চুমুর কারণে মাথা এবং ঘাড়ের ক্যান্সারও হতে পারে।

মেইল অনলাইনের বরাত দিয়ে জি নিউজ তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, বিশ্বাস করুন আর নাই করুন। ধূমপানের চেয়ে চুমু অধিকতর বিপদজনক। হ্যাঁ, এটাই সত্য। শুনে অবাক হতে পারেন যে, মাথা ও ঘাড়ে ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়াতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকাও রাখে ‘চুমু’।

গবেষকদের মত, চুমুর মাধ্যমে হিউম্যান পাপিলোমা (এইচপিভি) নামে একটি ভাইরাস স্থানান্তরিত হয়। ওরাল সেক্সের মাধ্যমে এই ভয়াবহ ভাইরাস দেহে ছড়িয়ে পড়তে পারে। বিশেষ করে ‘ফ্রেঞ্চ কিসের’ সময়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গলবিলে (ঘাড় ও গলাতে অবস্থিত পরিপাকনালীর অংশ) এইচপিভি আক্রান্তদের সাধারণ মানুষের চেয়ে ২৫০ বার বেশি ক্যান্সারের ঝুঁকি থাকে। এইচপিভি সাধারণভাবে সার্ভিক্যাল ক্যান্সারের (জরায়ু মুখের ক্যান্সার) সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। তবে এটি নারী-পুরুষ উভয়কে সংক্রমিত করে।

অস্ট্রেলিয়ার মাথা ও ঘাড় বিশেষজ্ঞ ডাক্তার মাহিবান থমাস বলেন,’ সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যে যৌন আকাঙ্ক্ষার পাশাপাশি সাধারণ চুমুতেও এইচপিভি স্থানান্তর হতে পারে। আর ‘ফ্রেঞ্চ কিসিং’এ সঙ্গীদের মাঝে এই ভাইরাস বেশি ছড়ায়।